Foto

স্বজনেরা এখনও খুঁজছেন রোহানকে


এখনও সন্ধান পাওয়া যায়নি নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএর ছাত্র তানজিল হাসান খান রোহানের। আজ শুক্রবার ভোর বেলা স্বজনেরা রোহানের সন্ধানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে গিয়েছেন।


রোহান বন্ধুদের সঙ্গে গত বুধবার রাতে খেতে গিয়েছিলেন চকবাজার এলাকায়। এরপর থেকেই তাঁর কোনো খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না। ওই দিন রাত ১০টা ১০ মিনিটে নন্দকুমার দত্ত সড়কের চুড়িহাট্টা মসজিদ গলিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

আগুনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয় ওয়াহেদ ম্যানসনের। এই ভবনের পাশে বেশ কয়েকটি রেস্তোরাঁ রয়েছে। এগুলোর প্রতিটিতে চার থেকে পাঁচটি করে গ্যাসের সিলিন্ডার রয়েছে। আগুন ছড়িয়ে যাওয়ার কারণে গ্যাস সিলিন্ডারগুলো বিস্ফোরিত হয়।

ঘটনার আগে বিকেল চারটার দিকে বাসা থেকে বের হন রোহান। পরে মোটরসাইকেলে করে ওয়াহেদ ম্যানসনের দিকে বন্ধুদের সঙ্গে যান তিনি।

রোহানের মোটরসাইকেলে ছিলেন আরাফাত। আরাফাতের লাশ পাওয়া গেছে। বাকি তিনজন বেঁচে আছেন। ওই তিনজন ছিলেন আরেক মোটরসাইকেলে।

ছবি হাতে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএর ছাত্র তানজিল হাসান ওরফে রোহানকে খুঁজে বেড়াচ্ছেন তাঁর স্বজনেরা। প্রথম আলো ফাইল ছবি
ছবি হাতে নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএর ছাত্র তানজিল হাসান ওরফে রোহানকে খুঁজে বেড়াচ্ছেন তাঁর স্বজনেরা। প্রথম আলো ফাইল ছবি
রোহানের বাসার গৃহশিক্ষক তারেকুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, আজ ভোরবেলা ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে গিয়েছেন রোহানের বাবা হাসান খানসহ পরিবারের বেশ কয়েকজন সদস্য।

আজ সকালে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গ থেকে ৪৫ জনের লাশ শনাক্ত করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এর মধ্যে রোহান ছিলেন না।

রোহানদের বাসা পুরান ঢাকার আগামসি লেনে। গ্রামের বাড়ি চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে।

Facebook Comments

" জাতীয় খবর " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ