Foto

সৌদির সঙ্গে হচ্ছে প্রতিরক্ষা স্মারক


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আসন্ন সৌদি আরব সফরের সময় মধ্যপ্রাচ্যের দেশটির সঙ্গে প্রতিরক্ষা বিষয়ক একটি সমঝোতা স্মারক হবে। সৌদি বাদশাহ সালমান বিন আব্দুলাজিজ আল সৌদের আমন্ত্রণে দুই দিনের সফরে মঙ্গলবার বিকালে রিয়াদের পথে রওনা হবেন শেখ হাসিনা। সোমবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী এক ব্রিফিংয়ে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সফরের সময় প্রতিরক্ষা ছাড়াও তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ে আরেকটি সমঝোতা স্মারকে সই হবে। তবে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের দ্বিতীয় মেয়াদের একবারে শেষ ভাগে স্বাক্ষরিত হতে যাওয়া এই প্রতিরক্ষা সমঝোতার বিস্তারিত জানাননি পররাষ্ট্রমন্ত্রী।


“স্মারকটি স্বাক্ষরিত হওয়ার পরই এ বিষয়ে জানা যাবে,” বলেন মাহমুদ আলী।

এর আগে ২০১৫ সালে সৌদি আরবের নেতৃত্বে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদবিরোধী সামরিক জোটে যুক্ত হয়েছিল বাংলাদেশ।

ইস্তাম্বুলে সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগির অন্তর্ধান নিয়ে উত্তেজনার মধ্যে সৌদি আরব সফরে যাচ্ছেন শেখ হাসিনা।

গত ২ অক্টোবর ওয়াশিংটন পোস্টের কলামনিস্ট খাসোগি ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে ঢোকার পর থেকে তার খোঁজ মিলছে না।

তুরস্কের দাবি, তাকে কনস্যুলেট ভবনের ভেতরে হত্যা করার পর লাশ সরিয়ে ফেলা হয়েছে। রিয়াদ ওই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বলেছে, কাজ শেষে খাসোগি কনস্যুলেট থেকে বেরিয় গিয়েছিলেন।

এক প্রশ্নে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাহমুদ আলী বলেন, খাসোগির অন্তর্ধানের বিষয়ে বাংলাদেশ নজর রাখছে, পাশাপাশি এই ঘটনা তদন্তে তুরস্ককে সঙ্গে নিয়ে কাজ করতে সৌদি আরবের প্রস্তাবকেও স্বাগত জানিয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, “আমরা আশা করি, যৌথ তদন্তের মধ্যে দিয়ে সব জল্পনার অবসান হবে।”

ব্রিফিংয়ে জানানো হয়, সৌদি আরব পৌঁছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ১৭ অক্টোবর রিয়াদে বাদশাহর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।

ওইদিন প্রধানমন্ত্রী নিজস্ব জমিতে নবনির্মিত বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্বোধন করবেন। এছাড়া কাউন্সিল অব সৌদি চেম্বার আয়োজিত একটি সেমিনারেও অংশ নেবেন শেখ হাসিনা।

পরদিন (১৮ অক্টোবর) প্রধানমন্ত্রী ওমরাহ পালন এবং মদিনায় মহানবী হজরত মুহাম্মদ (সা.) এর রওজা জিয়ারত করবেন।

১৯ অক্টোবর দেশের পথে রওনা হওয়ার আগে জেদ্দায় নিজস্ব ভূমিতে বাংলাদেশ কনস্যুলেট ভবন নির্মাণকাজের ভিত্তি স্থাপন করবেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সফরে প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে বিভিন্ন অর্জনের চিত্র তুলে ধরে এতে সৌদি আরবকে সহযোগিতা বাড়ানোর আহ্বান জানাবেন।

“প্রধানমন্ত্রীর দূরদর্শি নেতৃত্বে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সৌদি আরবের সঙ্গে সম্পর্ক আরো শক্তিশালী হয়েছে।”

সৌদি আরবের সঙ্গে সম্পর্ক এখন বহুমুখী উল্লেখ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ধর্মীয়, রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক এবং সাংস্কৃতিক গণ্ডি ছাড়িয়ে এই সম্পর্ক এখন প্রতিরক্ষা খাতেও বিস্তৃত হচ্ছে।

সৌদি আরবের সঙ্গে বাংলাদেশের প্রতিরক্ষা সম্পর্ক নতুন কিছু নয়। এবছরই সৌদি আরবসহ ২২ দেশের সঙ্গে গাল্ফ শিল্ড-১ নামের সামরিক মহড়ায় অংশ নিয়েছে বাংলাদেশ। সৌদি বাদশাহর আমন্ত্রণে ওই মহড়ার সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এছাড়া গত মে মাসে আরব ইসলামিক আমেরিকান সামিটে যোগ দিয়েছিলেন তিনি।

বাদশাহ আবদুলআজিজের আমন্ত্রণে শেখ হাসিনা গতবছর ৪-৭ জুন সৌদি আরব সফর করেছিলেন।

Facebook Comments

" বিশ্ব সংবাদ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ