Foto

‘সৃষ্টিকর্তাকে ধন্যবাদ আমি বেঁচে আছি’


বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম থেকে সরাসরি হাসপাতালে যেতে হয়েছিল সানডে চিজোবাকে। এখন ভালো হয়ে উঠছেন আবাহনী লিমিটেডের নাইজেরিয়ান এই স্ট্রাইকার। সানডে চিজোবাকে নিয়ে কী দুশ্চিন্তাতেই না পড়েছিলেন সবাই। শুক্রবার ফেডারেশন কাপের ফাইনালে আঘাত পেয়ে মাঠেই অজ্ঞান হয়ে পড়েছিলেন নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার। তাঁর তাৎক্ষণিক অবস্থা দেখে খেলা চলাকালীন অবস্থায় মাঠেই কাঁদছিলেন সতীর্থ দক্ষিণ কোরিয়ান মিডফিল্ডার মিনহিউক কো। টিভির পর্দায় বারবার ভেসে উঠছিল সেটা। সবার চোখেমুখেই ছিল আতঙ্কের ছাপ—‘কী না কী হয়!’


সবাইকে স্বস্তি দেওয়ার মতোই খবর মিলেছে। আবাহনীর স্ট্রাইকার সানডে এখন সুস্থ। নাইজেরিয়ান এই স্ট্রাইকার শুক্রবার রাতেই হাসপাতাল থেকে ক্লাবে ফিরেছেন এবং এখন ভালো আছেন বলে জানিয়েছেন, সৃষ্টিকর্তাতে ধন্যবাদ জানাই আমি বেঁচে আছি। আমার যখন জ্ঞান ফিরে তখন দেখি পায়ে বুট নেই, গায়ে নেই জার্সি। পরে পুরো ঘটনা শুনতে পাই, এখন ভালো আছি।

সানডের জোড়া গোলের ওপর ভর করে বসুন্ধরা কিংসকে ৩-১ গোলে হারিয়ে ফেডারেশন কাপের হ্যাটট্রিক চ্যাম্পিয়ন হয়েছে আবাহনী লিমিটেড। কিন্তু শিরোপা উদ্‌যাপন মঞ্চে থাকা হয়নি তাঁর। জোড়া গোলের পর খেলার শেষের দিকে নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড বল দখলের লড়াইয়ে বসুন্ধরার ডিফেন্ডার নাসির উদ্দিনের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েছিলেন। দৃশ্যত সাধারণ ফাউল হলেও মাথায় আঘাতে জ্ঞান হারিয়েছিলেন কিছুক্ষণের জন্য।

মাঠ থেকে সোজা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর ম্যাচের রাতেই মেলে তাঁর শঙ্কা মুক্তির খবর। ছয় গোল করে টুর্নামেন্টের সেরা গোলদাতা হয়েছেন সানডে। টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড়ও হয়েছেন নাইজেরিয়ান স্ট্রাইকার।

Facebook Comments

" ফুটবল সংবাদ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ