Foto

রোহিঙ্গাদের মুখে নির্যাতনের বর্ণনা শুনলেন আইসিসির প্রতিনিধিরা


কক্সবাজার ও বান্দারবানের দুটি রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) প্রতিনিধিরা। শনিবার প্রতিনিধি দলের ৬ সদস্য কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং এবং বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু কোনার পাড়ার শূন্য রেখায় অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন।


এ সময় রোহিঙ্গারা মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে তাদের ওপর সংঘটিত গণহত্যা-নির্যাতনের ব্যাপারে আইসিসির প্রতিনিধিদের অবহিত করেন। নৃশংস সেই বর্ণনা শুনে শিউরে ওঠেন প্রতিনিধি দলের সদস্যরা।

উখিয়া থানার ওসি আবুল মনছুর জানান, শনিবার সকাল ১০টার দিকে কুতুপালং ১৭ নং ক্যাম্প পরিদর্শনে আসে আইসিসির প্রতিনিধিদল। ক্যাম্প ইনচার্জ ওবাইদুলল্গাহর কার্যালয়ে দেড় ঘন্টাব্যাপী আলোচনা করেন তারা। এ সময় রোহিঙ্গাদের কাছে আইসিসির প্রতিনিধিরা জানতে চান, কী কারণে তারা মিয়ানমার থেকে পালিয়ে এসেছেন। এ রোহিঙ্গারা তাদের জানায়, ২০১৭ সালের ২৫ আগষ্টের পর থেকে মিয়ানমার সেনাবাহিনী ও সরকারি মদদপুষ্ট স্থানীয় সন্ত্রাসীরা তাদের ওপর নির্যাতন শুরু করে। তাদের হাতে রোহিঙ্গারা গণহত্যা, ধর্ষন ও গুমের শিকার হন। এ সময় রোহিঙ্গাদের বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগও করা হয়।

কুতুপালং থেকে আইসিসি প্রতিনিধিরা বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তুমব্রু কোনার পাড়ায় শূন্য রেখায় অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনে যান। তাদের কাছে রোহিঙ্গাদের নেতা দিল মোহাম্মদ নির্যাতনের বর্ণনা তুলে ধরেন। তিনি জানান, মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর চরম অত্যাচার, নির্যাতন, নিপীড়ন ও গণহত্যা চালানো হয়েছে। শিশুদের আগুনে পুড়িয়ে মারা হয়েছে। বাড়িঘর লুটপাট করা হয়েছে। দিল মোহাম্মদ আইসিসি প্রতিনিধিদের জানান, তারা শরনার্থী হিসেবে বাংলাদেশে আর থাকতে চাননা। নিজ দেশ মিয়ানমারে ফিরে গিয়ে নিজেদের বাড়িতে বসবাস করতে চান তারা। রোহিঙ্গাদের কথা শুনে আইসিসির প্রতিনিধরা আপ্লুত হয়ে পড়েন।

এর আগে শুক্রবার বিকেলে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইটে কক্সবাজার পৌঁছান আইসিসির প্রতিনিধরা। রোহিঙ্গারা মিয়ানমারে গণহত্যা এবং মানবতাবিরোধী অপরাধ হয়েছে কিনা বিষয়টি খতিয়ে দেখার পর ওই দেশের জেনারেলদের বিরুদ্ধে পূর্ণাঙ্গ তদন্ত শুরু করতে আইসিসির প্রতিনিধিরা বাংলাদেশে এসেছেন। তাদের কক্সবাজার সফর নিয়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং সংশ্লিষ্টরা কঠোর গোপনীয়তা রক্ষা করে চলেছেন।

Facebook Comments

" জাতীয় খবর " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ