Foto

রাজধানীতে বিএনপির র‌্যালি, খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি


মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে রাজধানীতে বর্ণাঢ্য র‌্যালি করেছে বিএনপি। র‌্যালিতে বিএনপি নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে বিভিন্ন প্ল্যাকার্ড ও ব্যানার বহন করেন। র‌্যালি শুরুর আগে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, দেশ স্বাধীনতা অর্জন করলেও জনগণ স্বাধীনতা পায়নি। তারা কেউ মুক্ত হতে পারেনি। একটা পাথর তাদের বুকের ওপর চেপে বসেছে। তাদের স্বাধীনতাকে কেড়ে নেওয়া হয়েছে। মানুষের মুক্তচিন্তা, কথা বলা ও লেখার স্বাধীনতাকে হরণ করেছে আওয়ামী লীগ।


বুধবার বিকেলে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে র‌্যালিটি শুরু হয়। পরে কাকরাইল ও শান্তিনগর মোড় হয়ে আবার বিএনপি কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়া সারাজীবন গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছেন। অথচ তাকে সম্পূর্ণ মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে আটক রাখা হয়েছে। তিনি অত্যন্ত অসুস্থ, তাকে চিকিৎসা পর্যন্ত দেওয়া হচ্ছে না।

তিনি বলেন, দলমত নির্বিশেষে জনগণের মধ্যে ঐক্য সৃষ্টি করে বিএনপি চেয়ারপারসনকে মুক্ত করতে হবে। একইসঙ্গে মুক্ত করতে হবে গণতন্ত্রকেও।

র‌্যালিতে অংশ নিতে দুপুরের পর থেকেই হাজার হাজার নেতাকর্মী দলীয় কার্যালয়ের সামনে জড়ো হতে থাকেন। এতে মহানগর বিএনপি উত্তর-দক্ষিণ, মুক্তিযোদ্ধা দল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, মহিলা দল, ছাত্রদল, তাঁতী দল, মৎস্যজীবী দল, ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ-ড্যাব, ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতাকর্মী যোগ দেন। এ সময় ফকিরাপুল থেকে নাইটিঙ্গেল রেস্তোরাঁ পর্যন্ত সড়কে ভিড় দেখা যায়। র‌্যালির সামনে ও পেছনে ছিল পুলিশের ব্যাপক উপস্থিতি।

অন্যান্যের মধ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, শাসুজ্জামান দুদু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুস সালাম, ফরহাদ হালিম ডোনার, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, ক্রীড়া সম্পাদক ও জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক আমিনুল হক প্রমুখ র‌্যালিতে অংশ নেন।

Facebook Comments

" রাজনীতি " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ