Foto

যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে আদালতে যাচ্ছেন হুয়াওয়ের সিএফও


এবার কানাডার বিরুদ্ধে মামলা করতে যাচ্ছেন হুয়াওয়ের প্রধান অর্থনৈতিক কর্মকর্তা (সিএফও) মেং ওয়ানঝু। গত বছরের ডিসেম্বরে ইরানে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন ও জালিয়াতির অভিযোগে মেংকে কানাডার ভ্যাঙ্কুভার বিমানবন্দর থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধে তাঁকে গ্রেপ্তার করে কানাডা। এবার ওই ঘটনার জন্য মেং কানাডা সরকারের বিরুদ্ধে নাগরিক অধিকার লঙ্ঘনের গুরুতর অভিযোগ এনেছেন।


আজ সোমবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

নিজের বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মেং ওয়ানঝু। তাঁর গ্রেপ্তারের ঘটনার নিন্দা জানিয়ে চীন সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র রাজনৈতিক উদ্দেশ্যেই এ কাজ করেছে।

গত শুক্রবার ব্রিটিশ কলাম্বিয়ার সুপ্রিম কোর্টে অভিযোগ দায়ের করেন মেং। রয়্যাল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশ (আরসিএমপি), কানাডিয়ান বর্ডার সার্ভিসেস এজেন্সি (সিবিএসএ) ও যুক্তরাষ্ট্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে তার নাগরিক অধিকার লঙ্ঘন করার অভিযোগে ক্ষতিপূরণ দাবি করেন। মেং বলেন, গ্রেপ্তারের আগে সিবিএসএ কর্মকর্তারা তাঁকে অন্যায়ভাবে আটকান, জিজ্ঞাসাবাদ করেন এবং তল্লাশি চালান।

ভ্যাঙ্কুভারে বেশ সম্পত্তির মালিক মেং। বর্তমানে জামিনে মুক্ত তিনি।

স্মার্টফোন, নেটওয়ার্ক যন্ত্রপাতিসহ প্রযুক্তি–দুনিয়ায় পশ্চিমা প্রতিষ্ঠানগুলোকে পেছনে ফেলে হুয়াওয়ে তর তর করে এগোচ্ছে। একই সঙ্গে চীনের এই প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানকে ঘিরে পশ্চিমা দেশগুলোর সন্দেহ বাড়ছে। হুয়াওয়ের ওপর কড়া নজর রাখছেন যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দারা। সেই সন্দেহের বশেই কানাডায় গ্রেপ্তার হন মেং ওয়ানঝু।

Facebook Comments

" বিশ্ব সংবাদ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ