Foto

মুস্তাফিজকে নিয়ে চিন্তিত নন রোডস


বিশ্বকাপে বাংলাদেশের পেস আক্রমণের অন্যতম বড় ভরসা ধরা হচ্ছে মুস্তাফিজুর রহমানকে। প্রথম বিশ্বকাপ খেলতে যাওয়া এই বাঁহাতি পেসারের কাছে অনেক প্রত্যাশা ক্রিকেটপ্রেমীদের। বল হাতে কার্যকর হতে পারলে বাংলাদেশের বড় অর্জনের নায়ক হতে পারবেন মুস্তাফিজ।


কিন্তু সম্প্রতি বল হাতে সময়টা ভালো কাটছে এই তরুণের। সর্বশেষ দুই ওয়ানডেতে বল হাতে বিবর্ণ তিনি। কাটার মাস্টার খ্যাত এই পেসার নিউজিল্যান্ড সফরের শেষ ম্যাচে ৯৪ রান দিয়েছেন। ডাবলিনে গত ৭ মে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ৮৪ রান দিয়েছেন।

বল হাতে মুস্তাফিজের এই খরুচে রূপ এখন বাংলাদেশের ক্রিকেটে বড় আলোচনার বিষয়। যদিও বাংলাদেশের হেড কোচ স্টিভ রোডস বলেছেন, মুস্তাফিজের ফর্ম নিয়ে বিন্দুমাত্র চিন্তিত নন তিনি। সদ্যই গোড়ালির ইনজুরি কাটিয়ে ওঠা এই তরুণ ধীরে ধীরে ছন্দ ফিরে পাচ্ছেন বলেই জানিয়েছেন রোডস।

গত বৃহস্পতিবার ম্যালাহাইডে বাংলাদেশ-আয়ারল্যান্ড ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ার পর মুস্তাফিজের বোলিং নিয়ে টাইগারদের কোচ বলেছেন, আমি মোটেও চিন্তিত নই। সে (মুস্তাফিজ) অসাধারণ একজন ওয়ানডে বোলার। বেশি দিন হয়নি সে বিশ্বের সেরা পাঁচ বোলারের মধ্যে ছিল। বাংলাদেশি বোলারদের মধ্যে তেমন কেউই বিশ্বের সেরা পাঁচে জায়গা করে নিতে পারেনি।

গতির কিছুটা তারতম্য হলেও ২৩ বছর বয়সী মুস্তাফিজকে বাংলাদেশের সেরা ডেথ বোলার মনে করেন রোডস। তিনি বলেছেন, শেষ ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে সে কিছু রান দিয়ে, এটা আমার কাছে চিন্তার কিছু নয়। সে আমাদের সেরা ডেথ বোলার। দারুণ চরিত্র ও খেলোয়াড়, তাই তার ফর্ম বা এমন কিছু নিয়ে আমি চিন্তিত নই। মাঝের ওভারগুলোতে তার কিছু বল উইকেটকিপার মুশফিকের হাতে গেছে যা দারুণ লেগেছে। মাঝে মধ্যে তার গতির ঘাটতি দেখা দেয়।

আয়ারল্যান্ডে ১৯ ক্রিকেটার নিয়ে গিয়েছে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপের চূড়ান্ত স্কোয়াডের ১৫ জন ছাড়াও অতিরিক্ত চার ক্রিকেটার নেওয়া হয়েছে ত্রিদেশীয় সিরিজের দলে। আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে ম্যাচটি পরিত্যক্ত হওয়ায় এই সিরিজে তাসকিন আহমেদ, ফরহাদ রেজা, ইয়াসির আলী রাব্বি, নাঈম হাসানদের ম্যাচ খেলার সুযোগ কিছুটা কমে গেল। কারণ বিশ্বকাপ দলের ক্রিকেটারদের সবার ম্যাচ অনুশীলন দরকার আছে। আগেই ফাইনাল নিশ্চিত হলে তাসকিন-ইয়াসিরদের সুযোগ দেওয়া পরিকল্পনা ছিল টিম ম্যানেজমেন্টের।

বৃষ্টিতে ম্যাচ পরিত্যক্ত হওয়ায় হতাশা ব্যক্ত করেছেন রোডস। ত্রিদেশীয় সিরিজের জন্য দলে ডাক পাওয়া বাকি চার ক্রিকেটারের খেলার সম্ভাবনা নিয়ে তিনি বলেছেন, আজকের (৯ মে) ম্যাচটি জিতলে সামনে হয়তো আমরা ওদের পরখ করতে পারতাম। তা হলো না, কেবল দুটি পয়েন্টই পেলাম। ওদের কয়েকজনের খেলার সম্ভাবনা তাতে কিছুটা হলেও কমে গেল, যা খুবই হতাশার।

তবে ফরহাদ রেজা-ইয়াসিরদের আন্তর্জাতিক মঞ্চে দেখার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন রোডস। তিনি বলেছেন, দুনিয়ার সবকিছু তো আদর্শ নয়। ওরা যারা আছে, বিশেষ করে ইয়াসির ও ফরহাদ, ওদেরকে ঘরোয়া ক্রিকেটে দেখেছি আমি। ভালো লেগেছে ওদের খেলা। এখানে কাছ থেকে দেখতে চেয়েছিলাম। ওদের পেশাদারিত্ব, কীভাবে দলে মিশতে পারে, এসব দেখতে চেয়েছিলাম। দুজনই সেসব খুব ভালো পেরেছে।

Facebook Comments

" ক্রিকেট নিউজ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ