Foto

মুশফিককে ‘ওপরে’ না তোলার ব্যাখ্যা দিলেন সাকিব


গত কয়েক টেস্টে মুশফিকুর রহিম কেন নিচের দিকে ব্যাটিং করছেন, এ নিয়ে সমালোচনা আছে। অনেকেই বলেন মুশফিকের মতো ব্যাটসম্যানের উচিত ওপরে ব্যাটিং করা। সংবাদ সম্মেলনে তার ব্যাখ্যা দিলেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান ।


অনেকের চোখেই মুশফিকুর রহিম টেকনিক্যালি বাংলাদেশের সেরা ব্যাটসম্যান। যে কোনো সংস্করণেই দলের ব্যাটিং অর্ডারে তিনি বড় ভরসা। তামিম ইকবালের অনুপস্থিতিতে মুশফিকের দায়িত্ব আরও বেড়ে যাওয়াই স্বাভাবিক। সে ক্ষেত্রে ব্যাটিং অর্ডারে মুশফিকের পজিশন এমন হওয়া উচিত, যেখান থেকে দলের গোটা ইনিংস টানার নেতৃত্ব দিতে পারেন—বিশ্লেষকদের মতামত অন্তত এমনই। আর তাই মুশফিককে তিনে অথবা চারে ব্যাটিংয়ে দেখতে চান অনেকেই। দেখতে চাওয়ার কারণ—টেকনিক্যালি বাংলাদেশের সেরা ব্যাটসম্যানটি যে এই দুই পজিশনে আর ব্যাটিংয়ে নামছেন না!
না, ব্যাপারটা যে স্থায়ী হয়ে গেছে তা নয়। মুশফিককে অদূর ভবিষ্যতে তিনে অথবা চারে দেখা যেতেই পারে। কিন্তু আপাতত পাঁচ অথবা ছয় নম্বর ব্যাটিং পজিশন থেকে মুশফিককে ওপরে তোলার কোনো ইচ্ছা নেই বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্টের। সংবাদ সম্মেলনে আজ এই কথা জানানোর সঙ্গে ব্যাখ্যাও দিলেন অধিনায়ক সাকিব আল হাসান, এটা আসলে দুইভাবে নেওয়া যেতে পারে। একটা হচ্ছে, আপনি জানেন একজন সেটল অবস্থায় আছে, ভালো করছে। মোটামুটি গ্যারান্টেড বলতে পারেন। ওই জায়গাতে টিম ম্যানেজমেন্ট বা যারা সিদ্ধান্ত নেন তারা বেশি চেঞ্জ করতে চান না।

মুশফিক চারে সর্বশেষ ব্যাট করেছেন এ বছরের জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে। প্রথম টেস্টে বাংলাদেশ ৪৩ ও ১৪৪ রানে গুটিয়ে যাওয়ার ধ্বংসস্তূপে চারে ব্যাটিং করেছেন তিনি। এরপর থেকে চার টেস্টে পাঁচ অথবা ছয়ে ব্যাটিং করছেন মুশফিক। এই চার টেস্টে ৪৯.৭১ গড়ে তাঁর রানসংখ্যা ৩৪৮। কোনো ফিফটি নেই, সেঞ্চুরিও নেই আবার আছেও—ওই যে এ মাসের শুরুতে ঢাকায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ডাবল সেঞ্চুরিটা!

মুশফিকের পাঁচ কিংবা ছয়ে ব্যাটিং করা নিয়ে এর আগে শোনা গিয়েছে, দলের ব্যাটিং অর্ডারের গভীরে সেরা ব্যাটসম্যানটিকে নামাতে চায় টিম ম্যানেজমেন্ট। আর মুশফিক গত চার টেস্টে এই সিদ্ধান্তের যৌক্তিকতা প্রমাণ করতে পারেননি তা অন্তত পরিসংখ্যানে তাকিয়ে বলা যাচ্ছে না। ব্যাটিং অর্ডারে মুশফিকের পরে নামা প্রসঙ্গে সাকিব উল্টো তুলে আনলেন অন্যান্য পজিশনের দুর্বলতাকে, যে জায়গাতে অভাব আছে ওখানে নতুন কেউ এসে পূরণ করবে ওইরকম আশাই থাকে। এ কারণে আমরা খুব বেশি একটা জায়গা পরিবর্তন চাই না। এই জায়গায় সফল হয়েছে অন্য জায়গায় সফল হবেই তার গ্যারান্টি নেই।

টিম ম্যানেজমেন্টও চাচ্ছে না পজিশন নিয়ে মুশফিকের মাইন্ড সেট নড়বড়। গত চার টেস্ট ধরেই মুশফিকের ব্যাটিং পজিশন মোটামুটি নিশ্চিত। আর ওই পজিশন মাথায় রেখেই তিনি প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এই অবস্থায় পজিশন পাল্টালে তাঁর মনোযোগে বিঘ্ন ঘটাই স্বাভাবিক যার প্রভাব পড়তে পারে ব্যাটিংয়েও। এর বদলে অন্যান্য পজিশনের দুর্বলতা ঠিক করতে পারলে দলের ব্যাটিংয়ে ঘাটতিও কমে আসবে বলে মনে করছেন সাকিব, আমরাও চাইনি মনে কোনো চিন্তা থাকুক এ রকম জায়গায় ছিলাম, এ রকম একটা জায়গায় এসেছি। এই পরিবর্তনগুলো আমি চাই না হোক। আমি বরং চাইব নতুন কেউ এসে নতুন জায়গা দখল করে নিক। ওই জায়গাগুলোর ঘাটতি পূরণ করে দিক যাতে আমাদের সমস্যাগুলো কমে আসে।

মিরপুর টেস্ট শুরু হবে কাল থেকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ধবলধোলাই করতে এই টেস্টে মুশফিকের চওড়া ব্যাটের বিকল্প নেই। কিন্তু অনুশীলনে আঙুলে চোট পাওয়ায় কাল তাঁর খেলা নিয়ে নিশ্চিত হওয়ার বদলে আশাবাদী হতে হচ্ছে বাংলাদেশ দলকে। সাকিব অবশ্য জানিয়েছেন, মুশফিক ভাই খেলবেন এবং দুটিই করবেন (ব্যাটিং ও কিপিং)।

Facebook Comments

" ক্রিকেট নিউজ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ