Foto

মায়ের পাশে মঞ্জুর হোসেন


রাজধানীর জুরাইন কবরস্থানে আজ শনিবার দুপুরে মায়ের কবরে দাফন করা হলো প্রবীণ চলচ্চিত্র নির্মাতা ও অভিনেতা মঞ্জুর হোসেনকে। এর আগে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন (এফডিসি) প্রাঙ্গণে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানানো হয়। গতকাল শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার রাজধানীর বনানীতে ছেলের বাসায় তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮১ বছর।


মঞ্জুর হোসেনকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে এফিডিসিতে ছুটে আসেন নাট্যজন মামুনুর রশীদ। তিনি বলেন, ‘আমার জীবনে এ রকম মানুষ দেখিনি, যে কখনো বেদনাহত হয়েছে। সব সময় সব পরিস্থিতিতে একটা আনন্দমুখর জীবন যাপন করতেন। তার মানে জীবনটাকে উদ্‌যাপন করতেন। একসঙ্গে দীর্ঘ বিমানভ্রমণের অভিজ্ঞতা আছে। একসঙ্গে বহু নাটকে অভিনয় করেছি। এ রকম মানুষ হয়তো আমরা পাব না, যে কখনো বেদনার্ত হয় না। দুঃখকে খুব সহজে জয় করতে পারে।’

ডিরেক্টর গিল্ডের সভাপতি সালাহউদ্দিন লাভলু বলেন, ‘খুব প্রাণবন্ত একজন মানুষ ছিলেন। সবাইকে আন্তরিকভাবে গ্রহণ করতে পারতেন। অভিনয়জগতের কারও কোনো বিপদের কথা শোনামাত্রই তিনি ছুটে গেছেন। একটি পা নিয়ে তিনি জীবন যাপন করেছেন। এই পা ছাড়া অবস্থায় তাঁর কাজের যে গতি ছিল, তা আমাদের ভীষণভাবে মুগ্ধ করেছে। এই বছর আমাদের অনেক অগ্রজ চলে গেছেন। মাথার ওপর থেকে সব ছায়া সরে যাচ্ছে। মঞ্জু ভাইও তেমনই একজন বটবৃক্ষ।’

বরেণ্য চিত্রনায়ক আলমগীর বলেন, ‘মঞ্জুর ভাই ভীষণ ভালো একজন মানুষ ছিলেন। মানুষের উপকারের নিবেদিতপ্রাণ। আমার সঙ্গেও ছিল তাঁর দারুণ সম্পর্ক। তিনি আমাকেও স্নেহ করতেন।’

এফিডিসিতে মঞ্জুর হোসেনের জানাজায় অন্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন মিশা সওদাগর, আহসান হাবিব নাসিম, মুশফিকুর রহমান গুলজার, জায়েদ খান, খোরশেদ আলম খসরু, নাদের খান, মাসুম বাবুল ও এফডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমীর হোসেন।

মঞ্জুর হোসেনের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতি। সংগঠনটির সভাপতি মিশা সওদাগর বলেন, মঞ্জুর হোসেন বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যায় ভুগছিলেন। তিনি মিরপুরের বাসিন্দা ছিলেন। সেখানে গতকাল সন্ধ্যায় তাঁর জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মঞ্জুর হোসেন জন্ম ১৯৩৭ সালে। তিনি অভিনয়ের পাশাপাশি চলচ্চিত্র পরিচালনা ও প্রযোজনা করেছেন। তাঁর অভিনীত প্রথম সিনেমা ‘রাজধানীর বুকে’। এরপর তিনি ‘হারানো দিন’, ‘ধারাপাত’, ‘সাত রং’, ‘তালাশ’, ‘শীত বিকেল’, ‘বন্ধন’, ‘মিলন’, ‘কাজল’, ‘নবাব সিরাজউদ্দৌলা’, ‘কাঞ্চন মালা’, ‘নয়ন তারা’, ‘তুম মেরে হো’, ‘কুলি’, ‘রূপবান’সহ অসংখ্য সিনেমায় অভিনয় করেছেন।

Facebook Comments

" বিনোদন " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ