Foto

বোমা সাদৃশ্য বেগুনটি যেভাবে এল


কালো টেপে মোড়ানো একটি বেগুন দেখে বোমা ভেবে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছিল চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) ক্যাম্পাসে। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে বোমা সদৃশ বস্তুটি পাবার পর রাতভর ওই স্থানটি ঘিরে রাখে পুলিশ।


পরে পুলিশের বোম্ব ডিস্পোজাল ইউনিটের সদস্যরা শুক্রবার সকালে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর জানান, এটি আসলে বেগুন।

এ বিষয়ে চবির আইন অনুষদের ডিন প্রফেসর এবিএম আবু নোমান জানান, সপ্তাহখানেক আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদে ’এন্টি টেররিজম মক ট্রায়াল’ (ছায়া আদালত) নামে একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। এতে ৮টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করেন।

তিনি বলেন, অনুষ্ঠানের একটি পর্বে বোমা উদ্ধারের মামলায় জব্দকৃত মালামালের আলামত হিসেবে বেগুন দিয়ে বানানো এই প্রতীকী বোমাটি উপস্থাপন করে শিক্ষার্থীরা। পরে কেউ হয়তো ভুলবশত সেটি আইন অনুষদ ভবনের পাশে ফেলে দিয়েছেন।

তবে এ বিষয়ে এখনও কিছু জানেন না বলে জানিয়েছেন হাটহাজারী থানার ওসি বেলাল উদ্দীন জাহাঙ্গীর।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ’বোমা সদৃশ’ বস্তুটির দেখা মেলে চবির আইন অনুষদ ভবনের পাশে। রাতভর ওই স্থানটি ঘিরে রাখে পুলিশ। শুক্রবার সকালে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের বোম্ব ডিস্পোজাল ইউনিটের সদস্যরা ঘটনাস্থলে যায়। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তারা জানান, এটি আসলে বেগুন। আতঙ্ক ছড়াতে বেগুনটিকে কালো টেপে মুড়িয়ে বোমার আকৃতি দিয়ে ফেলে রাখা হয়েছিল।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে আইন অনুষদের ডিনের কার্যালয়ের সামনে বোমা আকৃতির বস্তুটি পড়ে থাকতে দেখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা প্রহরী। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির কাছে খবর পেয়ে পুলিশ রাতভর ঘটনাস্থলের আশপাশ ঘিরে রাখে।

চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটের পরিদর্শক রাজেশ বড়ুয়া সমকালকে বলেন, একটি বেগুনে দুটি তার ও কালো টেপ মুড়িয়ে বোমার মত সাজিয়ে ফেলে রাখা হয়েছিল। শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করতে এমনটি করা হয়েছে বলে আমাদের মনে হয়েছে।

Facebook Comments

" জাতীয় খবর " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ