Foto

বিপিএলে ১ রানের যত হার


টি-২০ ক্রিকেটে এক রানের জয়-পরাজয় অহরহ দেখা যায়। বিপিএলও এর আগে এক রানের জয় দেখেছে। আইপিএল, সিপিএল কোথাও বোধহয় এক রানের জয় পাওয়ার রেকর্ডের বাকি নেই। এমনকি বাংলাদেশ ক্রিকেট দলও ২০১২ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে মাত্র এক রানের এক জয় পেয়েছিল। বিপিএলের ষষ্ঠ আসরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স আবার ভক্তদের গুরুত্বপূর্ণ এক ম্যাচে এক রানের জয় দেখাল। ঢাকা পেল সেই হারের স্বাদ।


ম্যাচটা কুমিল্লার জন্য অবশ্য খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল না। প্লে অফ তাদের আগেই নিশ্চিত হয়েছে। তবে এই ম্যাচ হারায় ঢাকার প্লে অফ কঠিন সমীকরণে পড়ে গেছে। শেষ ম্যাচে খুলনার বিপক্ষে জিততে না পারলে বাদই পড়ে যাবে সাকিবের দল। বিপিএলের নিয়ম অনুযায়ী, কোন দলেরই অবশ্য জয় হাতছাড়া করার বিলাসিতার সুযোগ নেই। কারণ পয়েন্ট টেবিলে সেরা দুই দল কোয়ালিফায়ার খেলার পর পরাজিত দল আবার এলিমিনেটরে জয়ী দলের সঙ্গে খেলার সুযোগ পাবে।

ঢাকায় গ্রুপ পর্বের শেষ পর্বের এই ম্যাচে মাত্র এক রানের জয় পেয়েছে কুমিল্লা। শেষ ওভারে জয়ের জন্য ঢাকার ১৩ রান দরকার ছিল। তারা নিতে পারে ১১ রান। তার মধ্যে শেষ দুই বলে ১২ রান দরকার ছিল ঢাকার। আন্দে রাসেল নিতে পারেন ১০ রান। আর আগের চার বলে মাত্র এক রান নিতে পারে তারা।

এনিয়ে বিপিএলে তিনটি এক রানে জয়ের ম্যাচ দেখা গেল। এর আগে ২০১৫ সালের আসরে এক রানের জয় ছিল দুটি। দুটি ম্যাচই আবার মাঠে গড়ায় পরপর দু’দিন। প্রথমটি ছিল ২৩ নভেম্বর আর দ্বিতীয়টি ২৪ তারিখে। প্রথম ম্যাচটায় মিরপুরে সিলেট সুপার স্টারসকে ১ রানে হারায় চিটাগং ভাইকিংস। পরের দিনও সিলেট শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে বরিশালের কাছে হারে এক রানে। এবারও মিরপুরে দেখা গেল ১ রানের হার-জিত।

এছাড়া বিপিএলে দুই রানে হার-জিতের ম্যাচ আছে দুটি। ২০১২ সালের আসরে সিলেট রয়্যালস দুই রানে হারে খুলনার কছে। অপর ম্যাচটি ২০১৩ সালে চিটাগং হারে খুলনার বিপক্ষে। এছাড়া তিন রানে হারের দুটি এবং চার রানের হার-জিত আছে চারটি ম্যাচে। এমনকি পাঁচ থেকে ১৩ রান পর্যন্ত ব্যবধানে একাধিক জয়-পরাজয় দেখেছে বিপিএল।

Facebook Comments

" ক্রিকেট নিউজ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ