Foto

বিপিএলে ফিরেছেন আশরাফুল


দুদিন পরই বিপিএল। দলগুলো এরই মধ্যে শুরু করে দিয়েছে অনুশীলন। চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে অনুশীলন শুরু করেছেন আশরাফুলও। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে পাঁচ বছর পর বিপিএলে ফিরছেন বাংলাদেশ দলের এ সাবেক অধিনায়ক


বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ( বিপিএল) যে ফিক্সিং মুক্ত নয়, সেটি প্রমাণিত হয়েছে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সংস্করণে, ২০১৩ সালেই। আর সেই ফিক্সিং জড়িত থাকায় যার নামটা সবার আগে আসে—মোহাম্মদ আশরাফুল। পরে তিনি স্বীকার করেন, ক্ষমা চান, কঠিন শাস্তিও পান। অন্ধকার পর্বটা পেছনে ফেলে আবারও বিপিএলে আশরাফুল। ফিরে কেমন লাগছে তাঁর?

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের বিসিবি একাডেমি মাঠে এখন প্রতিদিন বসছে তারকাদের মেলা। স্থানীয় খেলোয়াড়ের অনুশীলন শুরু করে দিয়েছেন এরই মধ্যে। কাল-পরশু থেকে প্রতিটি দলে যোগ দিতে শুরু করবেন বিদেশি তারকারাও। এই তারকাদের ভিড়ে আশরাফুলের দিকে আলাদা নজর পড়ার একটাই কারণ, গত আগস্টে সব ধরনের নিষেধাজ্ঞা কেটে যাওয়ায় পাঁচ বছর পর আশরাফুল ফিরছেন বিপিএলে। খেলবেন চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে। এ টুর্নামেন্টে ফিরে একটু অন্যরকম ভালো লাগা কাজ করছে আশরাফুলের, ’খুবই ভালো লাগছে। গত দুই বছর প্রথম শ্রেণি এবং ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে খেলছি। কিন্তু এই খেলাগুলো আসলে টিভিতে সম্প্রচার হয় না। বিপিএল একটি আন্তর্জাতিক মানের টুর্নামেন্ট। এখানে খেলতে পেরে নিজেকে অনেক ভাগ্যবান মনে হচ্ছে। চিটাগাং ভাইকিংসের মালিককে ধন্যবাদ জানাচ্ছি আমাকে নেওয়ার জন্য। আর যেহেতু খেলাটি জানি এবং আমার অভিজ্ঞতা আছে সুতরাং চেষ্টা করব সুযোগ পেলে ভালো খেলার।’

যে টুর্নামেন্টে লেখা হয়েছিল কলঙ্কিত অধ্যায়, সেটিতে ফিরে আশরাফুলকে শুধু ভালো খেললেই হবে না সতর্ক থাকতে হবে একই ভুলের পুনরাবৃত্তি যেন না হয়। আশরাফুল অবশ্য প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন, আর ভুল নয়, তিনি ফিরে আসতে চান দুর্দান্ত চেহারায়,’আমি যে অন্যায় করেছিলাম সেটার শাস্তি পেয়েছি। এ কারণে পাঁচ বছর নয় মাস বাইরে ছিলাম এ সংস্করণ থেকে। যেহেতু আমি অন্যায় স্বীকার করেছি এবং প্রায়শ্চিত্ত করেছি এবং গত দুটি বছর আমি ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলেছি। মোটামুটি ভালো ক্রিকেট খেলেছি, ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ বলেন, বিসিএলের এই মৌসুমটা বলেন। আমি চেষ্টা করব আমার যারা ভক্ত আছেন, তারা অপেক্ষায় আছে যেন আবার ফিরে আসতে পারি। তাদের জন্য হলেও চেষ্টা করব এ বিপিএলে ভালো খেলতে। যদি ফিরে আসতে পারি, একটা উদাহরণ তৈরি হবে। দীর্ঘ সময় বাইরে থেকেও আবার পারফরম্যান্স দিয়ে ফিরে আসা একটা চ্যালেঞ্জও বলে মনে করি।’
আপাতত ভাবনায় বিপিএল থাকলেও আশরাফুলের স্বপ্ন জাতীয় দল। গত আগস্টে নিষেধাজ্ঞা পুরোপুরি উঠে যাওয়ার পর সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, তাঁর স্বপ্ন ২০১৯ বিশ্বকাপ খেলা। আজ সংবাদমাধ্যমকেও একই কথা বলেছেন আশরাফুল, ’যেহেতু আমি একজন ব্যাটসম্যান, সুতরাং আমি যদি ফিট থাকতে পারি বিশ্বাস করি আরও চার-পাঁচ বছর খেলতে পারব। আপনি যদি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দেখেন তাহলে দেখবেন অনেকেই আছে এমন। সেটা নির্ভর করবে ফিটনেসের ওপরে। গত দুই বছরের চেয়ে এখন আমি নিজেকে অনেক ফিট মনে করছি। ফিটনেস এবং পারফরম্যান্স ঠিক থাকলে যত লম্বা সময় খেলা যায়। আর বাংলাদেশ দলে তো অবশ্যই খেলতে চাই। তিনটি বিশ্বকাপ খেলেছি বাংলাদেশের হয়ে, ২০০৩, ২০০৭ এবং ২০১১ সালে। ২০১৫ সালে নিষেধাজ্ঞা না থাকলে হয়তো তখন সুযোগ পেতে পারতাম। সামনে যেহেতু ২০১৯ বিশ্বকাপ রয়েছে, যদিও আমি সেটি নিয়ে এখন চিন্তা করছি না। তার পরেও মনে করি যে যদি ভালো করতে পারলে আমার অভিজ্ঞতাগুলো হিসাব করতে পারে।’

Facebook Comments

" ক্রিকেট নিউজ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ