Foto

বিএনপি সংসদে যোগ দিলে প্রতারক হিসেবে চিহ্নিত হবে


একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির নির্বাচিত সাংসদরা সংসদে যোগ দিলে প্রতারক হিসেবে চিহ্নিত হবেন বলে মন্তব্য করেছেন ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপির সভাপতি কর্নেল (অব.) অলি আহমেদ। জাতীয় প্রেস ক্লাবে শনিবার জোটের শরীক বাংলাদেশ লেবার পার্টি আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি একথা বলেন। জোট নেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে এই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।


কর্নেল অলি বলেন, ’এই নির্বাচনকে বিএনপি প্রত্যাখান করেছে। তাই আশা করবো— বিএনপির যারা নির্বাচিত হয়েছেন তারা জাতির সঙ্গে প্রতারণা করবেন না, বেঈমানি করবেন না, সংসদে যাবেন না।’

একাদশ নির্বাচনে ’ভোট ডাকাতি’ হয়েছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, সুষ্ঠু নির্বাচনের কথা বলে জঘন্যতম নির্বাচন হয়েছে। কয়েক হাজার বছর চেষ্টা করেও আওয়ামী লীগ ২৮৮টি আসন পেতে পারে না। এটাও নিকৃষ্টভাবে হাজার বছরের ইতিহাসে লেখা থাকবে। এই কলঙ্ক থেকে আওয়ামী লীগ কখনো মুক্ত হতে পারবে না।

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে এলডিপি সভাপতি বলেন, ’প্রধানমন্ত্রীকে বলতে চাই— আপনি বঙ্গবন্ধুর কন্যা। যেটা ভুল হয়েছে সেটা শোধরানোর ব্যবস্থা নিন, প্রয়োজনে পুনর্নির্বাচনের ব্যবস্থা নিন। সব দলের নেতাদের সঙ্গে কথা বলেন, দেশকে বাঁচান। না হলে দেশ অরাজকতার দিকে ধাবিত হবে, রক্তপাত বন্ধ করা সম্ভব হবে না।’

জাতির উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের প্রসঙ্গ টেনে কর্নেল অলি বলেন, ’একদিকে আপনারা ঐক্যের কথা বলবেন, অন্যদিকে প্রতিনিয়ত বিএনপিকে গালি দেন— বিএনপি ভেঙে যাচ্ছে, বিএনপি ছিঁড়ে যাচ্ছে। আগের দিন পিঠে লাথি মেরে পরের দিন ঐক্যের কথা বলবেন, তা তো হয় না।’

তিনি বলেন, ’দেশ বিক্রি হয়ে যাচ্ছে। নিলামে বিক্রি হচ্ছে। বাংলাদেশ এখন নিলামে উঠেছে। এ নির্বাচনে সরকারি দল হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যয় করেছে। এই টাকা কোথা থেকে আসলো? দুর্নীতি দমন কমিশনের উচিত প্রথমে এসব দেখা। যাদের সম্পদ কয়েক শতগুণ বেড়েছে তাদেরকে নোটিশ দেওয়া উচিত।’

খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানিয়ে অলি আহমেদ বলেন, ’ঘরে বসে বক্তব্য রেখে তার মুক্তি হবে না। জানি না বিএনপি কী করবে? আমরা ছোট দল, আমরা বিএনপির সঙ্গে থেকে সাহায্য-সহযোগিতার পরামর্শ দিতে পারবো। কিন্তু শক্তি যোগান দেওয়া সম্ভব না। বেগম জিয়াকে মুক্ত করার জন্য অবশ্যই সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।’

আন্দোলন ছাড়া কোনো উপায় নেই— এমন মন্তব্য করে কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বলেন, বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি থেকে বের হওয়ার কৌশল বের করতে হবে। জোটের মধ্যে সমন্বয়হীনতা দূর করতে হবে। এটাকে কার্যকর করতে হবে।

আলোচনা সভায় জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দার, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীনসহ লেবার পার্টির সভাপতি ড. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

Facebook Comments

" রাজনীতি " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ