Foto

বাজার উন্নয়ন ও বিনিয়োগকারীদের সুরক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর একগুচ্ছ সুপারিশ


পুঁজিবাজারের উন্নয়ন ও বিনিয়োগকারীদের সুরক্ষা নিশ্চিতকরণে একগুচ্ছ সুপারিশ বাস্তবায়নে নিয়ন্ত্রক সংস্থার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘অর্থনীতিকে বেগবান, বৃহৎ প্রকল্প বাস্তবায়নে অর্থায়নের ক্ষেত্রে পুঁজিবাজারের অবদান বৃদ্ধি এবং বিনিয়োগকারীর সুরক্ষা নিশ্চিতকরণের জন্য বিএসইসিসহ পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট সবাইকে যথাযথ ভূমিকা রাখার আহ্বান জানাই।’ আজ বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) রজত জয়ন্তী উপলক্ষে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।


অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর সুপারিশগুলো হচ্ছে, দীর্ঘমেয়াদী অর্থায়নের উৎস হিসেবে বন্ড মার্কেটের উন্নয়ন,নতুন নতুন প্রোডাক্ট চালুকরণের মাধ্যমে বিনিয়োগকারীর পছন্দের বাসকেট (ঝুড়ি) সম্প্রসারিত ও বৈচিত্র্যময় করা, নতুন প্রোডাক্ট চালু করার পূর্বে তার পরিচিতি।

পরিচালন প্রক্রিয়া ও কৌশল সম্পর্কে সংশ্লিষ্ট সবাইকে অবহিতকরণ এবং বিএসইসির প্রশিক্ষণ একাডেমির কার্যক্রম জোরদার করে সর্বস্তরে বিনিয়োগ শিক্ষা বিস্তৃতকরণ।

এছাড়াও আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে পুঁজিবাজারের ভূমিকা ও গুরুত্ব, অন্যান্য সেক্টরের সঙ্গে পুঁজিবাজারের আন্তঃসম্পর্ক ইত্যাদি নানা বিষয়ে সেমিনার, ওয়ার্কশপ, আলোচনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা এবং ভেঞ্চার ক্যাপিটালের অর্থায়নে প্রতিষ্ঠিত কোম্পনিসহ ক্ষুদ্র ও মাঝারি মূলধনী কোম্পানির শেয়ার লেনদেন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে দ্রুততম সময়ের মধ্যে স্মল ক্যাপ বোর্ড চালু করারও সুপারিশ করেছেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, আমি নিশ্চিত, এসব কর্মকাণ্ড বাস্তবায়িত হলে বেসরকারি খাতে বিনিয়োগের মাধ্যমে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ত্বরান্বিত হবে এবং দেশের অগ্রগতির ধারা আরও বেগবান হবে। আর এখানে বিনিয়োগ করে কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হোক, এটা আমরা চাই না।

সরকার ভবিষ্যৎ পুঁজিবাজার উন্নয়নে সর্বাত্মক সহযোগিতা প্রদান করবে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, পুঁজিবাজার হবে ভবিষ্যৎ বাংলাদেশ বিনির্মাণের দীর্ঘ মেয়াদী অর্থায়নের নির্ভরযোগ্য উৎস। আর একটি স্থিতিশীল, স্বচ্ছ ও জবাবদিহিমূলক পুঁজিবাজার গড়তে আমরা ইতোমধ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। এ জন্য ভারত চীনসহ বিভিন্ন দেশ বাংলাদেশের পুঁজিবাজার নিয়ে আগ্রহী হয়েছে। এর মধ্যে চীন বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে বিনিয়োগও করেছে। বিশ্বে বাংলাদেশের পুঁজিবাজার দ্রুত বিকাশ ও সম্ভাবনাময় হিসাবে বিবেচিত হচ্ছে।

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন। আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলাম এবং বিএসইসি চেয়ারম্যান ড. খায়রুল হোসেনও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে মন্ত্রী পরিষদ সদস্য, সংসদ সদস্য, বিভিন্ন ব্যবসায়িক সংগঠনের নেতা, বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান এবং কোম্পানির কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, প্রতিষ্ঠার ২৫ বছর পুর্তি উপলক্ষে বিএসইসি রজতজয়ন্তী উদযাপন করছে। এ লক্ষ্যে সপ্তাহব্যাপী বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে বিএসইসি।

Facebook Comments

" ব্যবসা ও বাণিজ্য " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ