Foto

বল এখন শাকিবের হাতে


‘আমরা যারা অভিনয় শিল্পী তাদের মেকআপ করে ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে হয়। এই মেকআপ কিন্তু নির্দিষ্ট একটা সময় পর্যন্ত থাকে। এরপর গলে পড়ে যায় বা তুলতে হয়। মেকআপ উঠে যাওয়ার পরই আসল চেহারা বের হয়ে আসে। সমাজের ক্ষেত্রেও ঠিক এমনই। সমাজে যারা মুখোশ পড়ে থাকে বা নিজের চারপাশে এমন কিছু জাল বিছিয়ে রাখে যাতে অন্যরা তাকে তার জন্য আশির্বাদ মনে করেন।


আসলে তার মধ্যে এমন কিছুই নেই। যখন তার মুখোশ ও চারপাশের মিথ্যেগুলো খুলে পড়ে তখন তার আসল রূপ বের হয়ে আসে। তখন সে পাশে কাওকেই পায়না। আমাদের চলচ্চিত্রেও কিছু এমন মানুষ রয়েছে ধীরে ধীরে তাদের মুখোশ খুলছে। তাদের জন্য যে কত কত মানুষ বেকার হয়ে বসে আছে তা হয়তো তারা নিজেরাও জানেনা। কেবল নিজের স্বার্থের কথা ভেবে চলচ্চিত্রের ক্ষতি ডেকে এনেছে। এখন সময় পাল্টে যাচ্ছে। কিসে চলচ্চিত্রের উন্নতি আর কিসে চলচ্চিত্রের মানুষ কাজ নিয়ে ব্যস্ত থাকতে পারবেন সেটা অনেকেই বুঝছেন । কথাগুলো সমকাল অনলাইনকে বলছিলেন ঢাকাই ছবির শীর্ষ নায়ক শাকিব খান।

এফডিসির ৪ নম্বর ফ্লোরে হচ্ছে শাহিন সুমন পরিচালিত ‌একটু প্রেম দরকার ছবির শুটিং। এ ছবির শুটিং সেটেই কথাগুলো বলেন শিকারিখ্যাত এ নায়ক। বলিবল খেলার কোর্টে একটি অ্যাকশন দৃশ্যের শুটিং হচ্ছিল এ ফ্লোরে। এ জন্য ফ্লোরটিকে পুরোপুরি বলিবল খেলার কোর্টের আদলে সাজানো হয়েছে। আগামী ২৬ মার্চ উপলক্ষে মুক্তির দেয়ার লক্ষে নির্মিত হচ্ছে ছবিটি।
বরাবরের মতো এ বছরও নতুন চমক দেখানোর অপেক্ষায় শাকিব। ইতোমধ্যে ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে মুক্তি পাচ্ছে এ নায়কের নতুন ছবি ‌শাহেনশাহ। দুই নায়িকা নুসরাত ফারিয়া ও রোদেলা জান্নাতকে নিয়ে ভালোবাসা দিবসে রোমান্স দেখাবেন ঢাকাই ছবির এ ভাইজান। চলতি বছর বাংলাদেশের পাশাপাশি কলকাতায়ও বড় কিছু প্রজেক্ট আসতে পারে তার। দিলেন সে ইঙ্গিতও। তবে শাকিব খানের এখন ঢাকার চলচ্চিত্র ইন্ডাষ্ট্রি কেন্দ্রিকই সব ভাবনা। অন্য সবার মতো তিনিও চাচ্ছেন সিনেমা ইন্ডাষ্ট্রি শুধু তার উপর ভরসা করে না চলুক। অন্য নায়কেরাও নিয়মিত চলচ্চিত্রে শুটিং নিয়ে ব্যস্ত থাকুক এ বছর এমনটিই প্রত্যাশা । এ জন্য এফডিসিতে সুষ্ঠু ও কাজের পরিবেশ তৈরির প্রতি সজাগ তিনি।

আমি তো শিল্পী সমিতির পর পর দুইবারে সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছি। তখন তো কাওকে চলচ্চিত্র নির্মাণে বাধা দেয়া হয়নি। তখনও সমিতিতে অনেকের নামে অনেক অনেক অভিযোগ আসতো। তাদেরকে সম্মানের সহিত ডেকে বিষয়গুলো সমাধান করা হতো। দুইকান হতো না। কারণ সবাইতো আমরা আমরাই ছিলাম। এখন সে চর্চা নেই। তবে ভালো কিছু আবার হবে। সেটা শিগগিরই। যোগ করে বলেন ঢাকাই ছবির সেরা এ নায়ক।
গত বছর শাকিব খান অভিনীত কলকাতার দুটি ছবি মুক্তি পায়। ভাইজান এলো রে ও নাকাব। এ বছর কলকাতার কোন প্রজেক্টে যুক্ত হয়েছেন কীনা জানতে চাইলে শাকিব খান সমকালকে বলেন,‌‌কলকাতার ছবি নিয়ে আপাতত ভাবছি না। দেশের কাজগুলো নিয়েই এখন ভাবনা আমার। কলকাতার কাজ করে অনেক বিষয় ক্লিয়ার হয়েছি। তারা প্রযুক্তিটা চলচ্চিত্রে কীভাবে কাজে লাগায় সেটার ধারণা হয়েছে। অনেক লিংকও তৈরি হয়েছে। চাইলে এখন বাংলাদেশে থেকেই তেমন ভালো মানের চলচ্চিত্র নির্মাণ হবে। সে লাইন গাইড সব জানা হয়েছে।

Facebook Comments

" বিনোদন " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ