Foto

বলিউড অভিনেত্রী থেকে গুগল ইন্ডিয়ার বিভাগীয় প্রধান


অনেকেই মনে করেন, নায়ক-নায়িকারা অভিনয়ের বাইরে তেমন কোনো কাজ পারেন না। এই ধারণা যে ভুল তা প্রমাণ হয়েছে অনেক আগেই। অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতি, ব্যবসাসহ অন্যান্য পেশায় রজনীকান্ত, শাহরুখ খানের মতো অভিনেতারাও সফলতা দেখিয়েছেন।


ঠিক তেমনই একজন বলিউড অভিনেত্রী ময়ূরী কঙ্গো। ১৯৯৬ সালে "পাপা ক্যাহতে হ্যায়" সিনেমায় যুগল হংসরাজের বিপরীতে নজর কেড়েছিলেন তিনি। এরপর জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত ছবি ‌নাসিম, বেতাবি, বাদলসহ একাধিক ছবিতে ববি দেওল, অজয় দেবগন, আরশাদ ওয়ারসি, রানি মুখার্জি, চন্দ্রচূড় সিং, অনুপম খের, শক্তি কাপুরসহ একাধিক জনপ্রিয় অভিনেতা-অভিনেত্রীর সঙ্গে অভিনয় করে দর্শকদের মন জয় করে নিয়েছিলেন ময়ূরী।

সফলতার চূড়ান্ত পর্যায়ে পৌছেও ২০০৩ সালে পুরোপুরি অভিনয় থেকে সরে আসেন এই অভিনেত্রী। ওই বছরেই আদিত্য ধিলো নামে এক ভারতীয়কে বিয়ে করে তার সঙ্গে নিউইয়র্কে পাড়ি জমান। সম্প্রতি আবারও ভারতে ফিরেছেন ময়ূরী। তবে অভিনেত্রী হিসেবে নয়, গুগল ইন্ডিয়ার ইন্ডাস্ট্রি হেড পদে নিয়োগ পেয়েছেন তিনি।

ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অভিনেত্রীর পাশাপাশি একজন মেধাবী ছাত্রী ছিলেন ময়ূরী। বিয়ের পর নিউইয়র্কে গিয়ে একটি কলেজ থেকে মার্কেটিং ও ফিন্যান্সে এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন। এরপর ২০১২ সাল পর্যন্ত নিউইয়র্কের বেশ কয়েকটি করপোরেট প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ পদে কাজ করেন। পরে মা হওয়ার পর ছেলেকে নিয়ে ভারতে ফিরে আসেন ময়ূরী।

সম্প্রতি টাইমস অব ইন্ডিয়াকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ময়ূরী বলেন, "৯০-এর দশকে আমি ১৬টি ছবিতে অভিনয় করেছি। তারপর নিউইয়র্কে চলে যাওয়ার পর আবারও পড়াশোনা শুরু করি। করপোরেট জগতে অনেকে মনে করেন, অভিনেতা-অভিনেত্রীরা খুব বেশি বুদ্ধিমান হন না, তাই প্রতি মুহূর্তে আমাকে নিজেকে প্রমাণ করতে হয়েছে। আমার মনে হয়, বলিউডে আসার আগে প্রত্যেককে পড়াশোনা শেষ করে আসা উচিত, বিশেষ করে অভিনেত্রীদের। বলিউডে খুব বেশি হলে ১০ বছর কাজ করা যায়, তারপর নতুন কাজের জন্যও নিজেকে তৈরি রাখা উচিত।"

১৬ বছর আগে বলিউডের সঙ্গে সম্পর্কের ইতি টানলেও এখনও পুরনো সহকর্মী ও বন্ধুদের কথা মনে পড়ে বলে জানান ময়ূরী কঙ্গো।

 

Facebook Comments

" বিনোদন " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ