Foto

বইয়ের পাতায় ভাষার লড়াই


বিকেল ৩টায় যখন মেলার দ্বার খুলছিল, তখন আবহে বাজছিল- 'আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি...।' শহীদ মিনার ও এর আশপাশে চলছিল আলপনায় তুলির আঁচড়। একুশের এমনই আবহের মধ্য দিয়ে অতিবাহিত হলো অমর একুশে গ্রন্থমেলার ২০তম দিন। একুশে নামে অনুষ্ঠিত এ মেলাতে ভাষা আন্দোলন নিয়ে নতুন বইয়ের সংখ্যা খুবই কম। তারপরও বইয়ের পাতায় ভাষাসংগ্রামী ও গবেষকরা তুলে আনছেন রাষ্ট্রভাষার লড়াইয়ের ইতিকথা।


একুশে ফেব্রুয়ারির আগের দিন গতকাল বুধবার মেলা ঘুরে দেখা গেছে, অনেকের মাঝেই ছিল একুশের আবহ।

কথনে-বসনে একুশ এলেও একুশের নতুন বই খুঁজে পেতে বেশ বেগ পেতে হয়েছে। মেলার প্রায় ৮০ শতাংশ স্টল ঘুরে ভাষা আন্দোলনের ওপর গোটা বিশেক নতুন বইয়ের নাম পাওয়া গেছে। প্রকাশকদের দাবি- ভাষা আন্দোলন নিয়ে পা ুলিপি পাওয়া যায় না, তাই তারা বই প্রকাশ করতে পারছেন না।

ভাষা আন্দোলন নিয়ে এবারের মেলায় আসা নতুন বইগুলো হলো কথাপ্রকাশ থেকে ভাষাসংগ্রামী আহমদ রফিকের দুটি বই ’ভাষা আন্দোলনের স্মৃতি ও কিছু কথা’ ও ’ভাষা আন্দোলনের গল্প শোন’ এবং প্রথমা থেকে এসেছে তার ’ভাষা আন্দোলন টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া’। পাঞ্জেরী থেকে এসেছে মাহবুবুল হকের ’গল্পে গল্পে ভাষা আন্দোলন’। আগামী প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয়েছে মোনায়েম সরকার সম্পাদিত ’একুশের নির্বাচিত প্রবন্ধ’ এবং এম আবদুল আলীমের তিনটি বই ’সিরাজগঞ্জে ভাষা আন্দোলন’, ’পাবনায় ভাষা আন্দোলন’ এবং ’ভাষা আন্দোলনে ছাত্রলীগ-কতিপয় দলিল’। ইত্যাদি গ্রন্থ প্রকাশ থেকে প্রকাশিত হয়েছে সুফিয়া বেগমের ’ভাষা সংগ্রামী নারীরা’। অধ্যয়ন থেকে এসেছে রাদিন চৌধুরীর ’ভাষা আন্দোলনের সহজ পাঠ’। বটেশ্বর বর্ণন এনেছে সুমাইয়া খানমের ’ভাষা-আন্দোলন ও বাংলাদেশের কথাসাহিত্য’। এশিয়া পাবলিকেশন্স এনেছে ইসমাইল হোসেন বকুলের ’রক্তের কারাগারে বন্দী ৮ই ফাল্কগ্দুন; ভাষা আন্দোলন ও রক্তঝরা একুশ’ এবং ড. গুলশান আরার ’ভাষা আন্দোলনের কথা’। অন্যপ্রকাশ থেকে প্রকাশিত হয়েছে গোলাম কুদ্দুছের ’ভাষা আন্দোলন সহজ পাঠ’। সূচিপত্র থেকে প্রকাশিত হয়েছে ড. আরিফুর রহমানের ’ভাষা আন্দোলন ও বাঙালির আত্মপরিচয়’। গৌরব থেকে প্রকাশিত হয়েছে ভাষা আন্দোলন গবেষক এম আর মাহবুবের তিনটি বই- ’আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস কেমন করে হলো’, ’একুশের নেপথ্য কথা’ ও ’ভাষাসংগ্রাম কী ঘটেছিল’।

ভাষা আন্দোলনের বই কম হওয়ার বিষয়ে জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশক সমিতির সভাপতি ফরিদ আহমেদ বলেন, ’ভাষা আন্দোলনের ওপর পা ুলিপি পাওয়া যায় না বলে এ বিষয়ের ওপর বই কম প্রকাশিত হয়। যারা কাজ করছেন তারা প্রায় সবাই ভাষাসংগ্রামী। পরবর্তী প্রজন্ম কাজ কম করছেন। কিন্তু কাজ হওয়া দরকার।’

আগামী প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী ওসমান গণি বলেন, ’আসলে লেখকরা এ বিষয়ে বই কম লেখেন। কারণ, এটি একটি বড় ধরনের গবেষণার বিষয়। আমরা ভালো পা ুলিপি পেলে অবশ্যই ভাষা আন্দোলনের ওপর বই করতে চাই।’

অমর একুশে উপলক্ষে আজ বৃহস্পতিবার মেলার দ্বার খুলবে সকাল ৮টায়। চলবে পুরো ১৩ ঘণ্টা; অর্থাৎ রাত ৯টা পর্যন্ত। থাকছে একুশে নিয়ে নানা আয়োজন। সকাল সাড়ে ৭টায় একুশে গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে রয়েছে স্বরচিত কবিতা পাঠের আসর। বিকেলে অমর একুশে বক্তৃতা প্রদান করবেন ভাষাসংগ্রামী জাতীয় অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম। সন্ধ্যায় রয়েছে কবিকণ্ঠে কবিতাপাঠ, কবিতা আবৃত্তি ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

লেখক বলছি... মঞ্চ :গতকাল মেলার লেখক বলছি... মঞ্চে নিজেদের সাম্প্র্রতিক প্রকাশিত বই নিয়ে আলোচনা করেন পাঁচ কবি-সাহিত্যিক। কবি-প্রাবন্ধিক মাসুদুজ্জামান ’প্রাচ্যবাদ, রবীন্দ্রনাথ ও অন্যান্য’ (বাংলাপ্রকাশ), কবি মুজতবা আহমেদ মুরশেদ ’মুক্তভাবনা’ (গণপ্রকাশন), কথাসাহিত্যিক প্রশান্ত মৃধা ’নিজস্ব মুদ্রাদোষ’ (পেন্সিল প্রকাশনী), প্রাবন্ধিক শীলা মোস্তফা ’পলিট্যুরিসম’ (বিদ্যাপ্রকাশ) এবং কবি প্রত্যয় জসিম ’কালভেরী পাহাড়ের শোকগাথা’ (শিখা প্রকাশনী) নিয়ে পাঠকের মুখোমুখি হন।

নতুন বই :একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগ থেকে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ী, গতকাল মেলায় ১৩৮টি নতুন বই মেলায় এসেছে। এর মধ্যে গল্প ২৪টি, উপন্যাস ১৮টি, প্রবন্ধ ৯টি, কবিতা ৪৭টি, গবেষণা ২টি, ছড়া ৪টি, শিশুসাহিত্য ১টি, জীবনী ৫টি, মুক্তযুদ্ধবিষয়ক ৬টি, নাটক ১টি, ভ্রমণ ৩টি, ইতিহাস ২টি, রাজনীতি ২টি, স্বাস্থ্য ১টি, সায়েন্স ফিকশন ১টি, ধর্মীয় ১টি, অভিধান ১টি, অনুবাদ ১টি এবং অন্যান্য ৯টি।

উল্লেখযোগ্য বইগুলোর মধ্যে রয়েছে জুয়েল মাজহারের ’কবিতার ট্রান্সট্রোমার’ (বেহুলাবাংলা), মুনতাসীর মামুনের ’কেনো চেয়েছি শেখ হাসিনাকে’ (সময়), আসলাম সানীর ’শিশুর সনে ফুলের বনে’ ও আসাদ চৌধুরীর ’চিত্রশিল্পী রাফায়েল সেনজিত্ত দ্য আরবিনো’ (পদক্ষেপ), তানভীর মোকাম্মেলের ’চলচ্চিত্র নন্দনতত্ত্ব ও বারোজন ডিরেক্টর’ (অনার্য), হাবীবুল্লাহ সিরাজীর ’সুভাষিত’ (য়ারোয়া), ইকবাল হাসানের ’রিমান্ড, তেলাপোকা ও আকাশপরী’ (বৈভব), তাবারক হোসেনের ’নিষ্পত্তি’ (অন্যপ্রকাশ), দেওয়ান শামসুর রকিবের ’নয় রকমের গল্প’ (দেশ পাবলিকেশন্স)।

মূলমঞ্চের আয়োজন :গতকাল গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ’সওগাত পত্রিকার শতবর্ষ :ফিরে দেখা’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ড. ইসরাইল খান। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন ড. হাবিব আর রহমান এবং ড. আমিনুর রহমান সুলতান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড. মুহাম্মদ সামাদ।

সন্ধ্যায় কবিকণ্ঠে কবিতা পাঠ করেন কবি আসাদ চৌধুরী, নাসির আহমেদ, মারুফুল ইসলাম এবং ওবায়েদ আকাশ। আবৃত্তি পরিবেশন করেন আবৃত্তিশিল্পী ডালিয়া আহমেদ এবং অলোক বসু।

Facebook Comments

" লেখাপড়া " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ