Foto

প্রাইভেসি রক্ষায় কড়া আইন চান অ্যাপল প্রধান


যুক্তরাষ্ট্রে নতুন একটি কড়া ডেটা সুরক্ষা আইন দাবি করেছেন টিম কুক। ইউরোপে এক অনুষ্ঠানে দেওয়া বিব্রৃতিতে এই দাবি করেন মার্কিন টেক জায়ান্ট অ্যাপলের প্রধান নির্বাহী। “অসম্ভবরকম ব্যক্তিগত” ডেটার অপব্যবহারের কথা নির্দেশ করে কুক বলেন এই ডেটা “মার্কিন সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছিল।” তিনি বলেন, “আমাদের এই ঘটনাগুলোকে সাদরে গ্রহণ করে নেওয়া উচিৎ নয়। এটি নজরদারি।”


কড়া ভাষায় দেওয়া কুকের এই বক্তব্য ব্যহারকারীদের ব্যক্তিগত গোপনীয়তার বিষয়ে একটি শীর্ষ প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান প্রধানের দেওয়া রক্ষাকবচ হিসেবে বর্ণনা করেছে বিবিসি।

ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন বা ইইউর করা নতুন ডেটা সুরক্ষা আইন জিডিপিআর-এরও প্রশংসা করেছেন কুক। ইইউর নতুন এই চলতি বছর মে থেকে কার্যকর হয়।

বেলজিয়ামের ব্রাসেলসে ইন্টারন্যাশনাল কনফারেন্স অফ ডেটা প্রটেকশন অ্যান্ড প্রাইভেসি কমিশনারস-এ এই বিবৃতি দেন কুক।

ডেটা অপব্যবহার নিয়ে বিস্তারিত মতামত দেন কুক। বিষয়টিকে তিনি আখ্যা দিয়েছেন “ডেটা শিল্পের জটিলতা” হিসেবে। তার ভাষ্যমতে, মানুষের “পছন্দ- অপছন্দ, “ইচ্ছা ও শঙ্কা” বা “আশা ও শঙ্কা”-এর উপর ভিত্তি করে শত শত কোটি ডলারের বাণিজ্য হয়েছে।

এই পরিস্থিতি “আমাদের জন্য অস্বস্তিকর হওয়া উচিৎ, এটি আমাদেরকে উদ্বিগ্ন করা উচিৎ” বলেও মন্তব্য করেন কুক। ডেটা বাণিজ্যে ব্যক্তিগত ডেটা কেবল সংগ্রাহক প্রতিষ্ঠানকে সমৃদ্ধ করতেই ব্যবহৃত হয়েছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

ইইউর উদ্দেশ্যে কুক বলেন, “চলতি বছর, আপনারা বিশ্বকে দেখিয়েছেন যে ভালো ও রাজনৈতিক নীতিমালা প্রত্যেকের অধিকার রক্ষায় একত্র হতে পারে।”

“এখন আমার দেশসহ বাকি বিশ্বের আপনাদের নেতৃত্ব অনুসরণ করার সময়।”

“অ্যাপলে আমরা যুক্তরাষ্ট্রে একটি বিস্তৃত ফেডারেল প্রাইভেসি আইনে পূর্ণ সমর্থন রাখি।”

কুক-এর এই মন্তব্যের পর সম্মেলনে উপস্থিত দর্শকদের হাততালিতে ভরে উঠে অনুষ্ঠানস্থল।

চলতি সপ্তাহের শেষে এই সম্মেলনে ফেইসবুক প্রধান মার্ক জাকারবার্গ আর গুগল প্রধান সুন্দার পিচাইয়ের আগে থেকে রেকর্ড করে রাখা বিবৃতি দেখানো হবে।

Facebook Comments

" প্রযুক্তি " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ