Foto

প্রথম দিনে অনুপস্থিত ১০ হাজার শিক্ষার্থী


এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রথম দিনে গতকাল শনিবার সাধারণ শিক্ষাবোর্ডে বাংলা ১ম পত্র এবং মাদ্রাসা বোর্ডে কুরআন মাজিদ পরীক্ষায় ১০৩৮৭ জন অনুপস্থিত ছিল। পরীক্ষায় অসদুপায় অবলম্বনের দায়ে বহিষ্কৃত হয়েছে ২৪ জন শিক্ষার্থী।


নিয়ন্ত্রণ কক্ষ জানায়, মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডে অনুপস্থিত ছিল ৩৭৮৮ আর বহিষ্কার হয়েছে ৬ পরীক্ষার্থী। কারিগরি শিক্ষাবোর্ডে অনুপস্থিত ছিল ১৬২১ আর বহিষ্কার হয়েছে ১৩ পরীক্ষার্থী। ঢাকা বোর্ডে অনুপস্থিত ১৩৯৬ জন। এছাড়া রাজশাহী বোর্ডে ৭৬২, কুমিল্লায় ৬৩১, যশোরে ৪৬৩, দিনাজপুরে ৫৪১, সিলেটে ৩১৮, বরিশালে ৩৯০ এবং চট্টগ্রাম বোর্ডে ৪৭৭ পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। সাধারণ ৮টি বোর্ডে ৫ শিক্ষার্থী বহিষ্কার হয়েছে। এর মধ্যে ৩ জন বহিষ্কার হয়েছে বরিশাল বোর্ডে। এ ছাড়া ঢাকা ও দিনাজপুর শিক্ষাবোর্ডে একজন করে বহিষ্কার হয়েছে।
অন্যান্য বছরের মতো এবারো সকালের পরীক্ষা ১০টা থেকে ১টা পর্যন্ত নেওয়া হয়। এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় এবার মোট পরীক্ষার্থী ২১ লাখ ৩৫ হাজার ৩৩৩। এর মধ্যে ছাত্র ১০ লাখ ৭০ হাজার ৪১১ এবং ছাত্রী ১০ লাখ ৬৪ হাজার ৮৯২ জন। সারাদেশে ২৮ হাজার ৬৮২টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের ৩ হাজার ৪৯৭টি কেন্দ্রে পরীক্ষার আয়োজন করা হয়।
গতকাল সকালে রাজধানীর বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি সাংবাদিকদের বলেন, সারাদেশে নকলমুক্ত পরীক্ষা আয়োজনে তীক্ষ্ণ গোয়েন্দা নজরদারি রয়েছে। তাই কোনোভাবে প্রশ্নফাঁস করা সম্ভব নয়।
মন্ত্রী বলেন, নির্দেশনা অনুযায়ী পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট আগে প্রশ্নবাক্স খোলা হয়েছে। সারাদেশে অ্যালুমিনিয়াম ফয়েল পেপারে মোড়ানো প্রশ্নপত্র পাঠানো হয়েছে। মন্ত্রী বলেন, পূর্বের চাইতে এবার আমরা আরও কঠোর অবস্থানে রয়েছি। তাই প্রশ্নফাঁস বা তার গুজব ছড়ালে তারা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ধরা পড়বে। ইন্টারনেটের মাধ্যমে যারা গুজব ছড়াচ্ছে তাদের ওপর নজরদারি বসানো হয়েছে। দ্রুত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তাদের গ্রেফতার করবে।
ফেসবুকে পরীক্ষার প্রশ্ন: পরীক্ষা শুরুর আগে প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ না পাওয়া গেলেও পরীক্ষা চলাকালে পরীক্ষাটির বহুনির্বাচনী (এমসিকিউ) প্রশ্ন এবং সৃজনশীল প্রশ্ন ফেসবুকে পাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। পরীক্ষা শেষে আসল প্রশ্নের সঙ্গে ফাঁস হওয়া বহুনির্বাচনী প্রশ্নের মিল না পাওয়া গেলেও সৃজনশীল প্রশ্নের হুবহু মিল পাওয়া যায়। ফেসবুকের ’ssc all board question out 2019-?100%’ নামের একটি পেজে গতকাল সকাল ১০টা ৩৮ মিনিটে বহুনির্বাচনী প্রশ্ন পোস্ট করা হয়। অন্যদিকে, বেলা ১১টা ৩০ মিনিটে পরীক্ষাটির সৃজনশীল প্রশ্নের ৩নং সেটের প্রশ্ন পোস্ট করা হয়।
এ ব্যাপারে ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর মু. জিয়াউল হক সাংবাদিকদের বলেন, এবার এমন নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে কোনোভাবেই প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়া সম্ভব নয়। যদি পরীক্ষা চলাকালে প্রশ্ন ফেসবুকে আসে তবে সেটা আসল নাকি নকল তা দেখতে হবে।
তিনি বলেন, নিয়ম আছে, কোনো পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার ১ ঘণ্টা পরে সে চাইলে কেন্দ্র থেকে বের হয়ে যেতে পারবে। হয়তো এমনটিই হয়েছে। কোনো পরীক্ষার্থী ১ ঘণ্টা কেন্দ্রে ছিল, পরীক্ষা দিয়েছে, বের হয়ে এসে সেই প্রশ্নের ছবি তুলে ফেসবুকে দিয়েছে। কত রকম দুষ্টু চক্র যে আছে, সবাইকে তো ধরতে পারব না।

Facebook Comments

" লেখাপড়া " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ