Foto

প্রতিবছর তামাকজনিত রোগে ‘দেড় লক্ষাধিক’ মৃত্যু হয়


তামাক সেবনে প্রতিবছর দেশে দেড় লাখেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয় বলে এক গবেষণায় প্রকাশ করা হয়েছে।


রোববার গাজীপুর প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ জাতীয় যক্ষ্মা নিরোধ সমিতির (নাটাব) আয়োজনে এক আলোচনা সভায় এ তথ্য জানানো হয়।

টোবাকো এটলাস-২০১৬ এবং গ্যাটস্ রিপোর্ট বাংলাদেশ-২০১৭ এর প্রতিবেদনের তথ্য উপস্থাপন করে নাটাবের প্রকল্প সমন্বয়কারী খলিল উল্লাহ জানান, দেশের বর্তমানে প্রায় ৩৫ দশমিক ৩০ শতাংশ মানুষ কোনো না কোনোভাবে তামাক ব্যবহারের সাথে জড়িত।

তিনি জানান, নারীদের মধ্যে ২৫ দশমিক ০২ শতাংশ এবং পুরুষের মধ্যে ৪৬ শতাংশ তামাক ব্যবহার করেন। প্রায় ৪২ দশমিক ৭০ শতাংশ মানুষ কর্মস্থলে পরোক্ষভাবে ধূমপানের শিকার হয়।

“তামাক স্বাস্থ্য, অর্থনীতি এবং বাংলাদেশের নতুন প্রজন্মকে হুমকির মুখোমুখি করছে। বছরে ১ লাখ ৬১ হাজার দুইশরও বেশি মানুষ তামাকজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান।”

বাংলাদেশে তামাক শিল্প ও এর প্রসার নিশ্চিত করে যে তামাকের কারণে মৃত্যুর সংখ্যা প্রতিবছর বৃদ্ধি পাচ্ছে, বলেন তিনি।

তামাক ব্যবহার বন্ধে বিভিন্ন মিডিয়াতে বিজ্ঞাপন, সিনেমা ও নাটকে ধুমপান করার বিষয়টি নিরুৎসাহিত করতে হয়। নাটাব তামাক ও তামাকজাত দ্রব্যের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ তথা বন্ধে বিভিন্ন কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানান খলিল উল্লাহ।

এ বিষয়ে নাটাব সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে সহযোগিতা কামনা করে বলেও খলিল জানান।

তামাকজাত দ্রব্যের বিজ্ঞাপন ও প্রচারণা নিষিদ্ধ এবং পৃষ্ঠপোষকতা নিয়ন্ত্রণ (TAPS ban) সম্পর্কিত বিধান বাস্তবায়নে স্থানীয় জেলা আইনজীবীদের করণীয় শীর্ষক আলোচনা সভায় সভাপাতিত্ব করেন নাটাবের গাজীপুরের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা হাতেম আলী।

আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন নাটাবের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক বেলাল হোসেন, প্রকল্প সমন্বয়কারী খলিল উল্লাহ, মাঠকর্মী সুধাংশু বিশ্বাস প্রমুখ।

 

Facebook Comments

" জাতীয় খবর " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ