Foto

নিষেধাজ্ঞা ফুরোনোর দুদিনের মধ্যেই মাঠে


সামনেই বিশ্বকাপ। যত দ্রুত সম্ভব দলের দুই বড় ভরসা ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভ স্মিথকে জায়গা করে দিতে চায় অস্ট্রেলিয়া। নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ার পর তাই বেশি দিন অপেক্ষা নাও করতে হতে পারে তাঁদের


নিষেধাজ্ঞা শেষের সময়টা যত ঘনিয়ে আসছে, তাঁদের ফেরা নিয়ে আলোচনাটাও তত বাড়ছে। আসলে কবে অস্ট্রেলিয়ার জার্সিতে ফিরবেন স্টিভেন স্মিথ-ডেভিড ওয়ার্নার? কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার যেমন আভাস দিয়েছেন, তাতে মনে হচ্ছে আগামী বছর নিষেধাজ্ঞা শেষের দুই দিন পর শুরু হতে যাওয়া পাকিস্তান সিরিজেই দেখা যেতে পারে সাবেক অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক ও সহ–অধিনায়ককে।

এ বছর মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কেপটাউন টেস্টে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে এক বছরের নিষেধাজ্ঞা পান স্মিথ ও ওয়ার্নার। তাঁদের সতীর্থ ক্যামেরন ব্যানক্রফট নিষিদ্ধ হন ৯ মাসের জন্য। সেই হিসাবে ব্যানক্রফটের নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে এ মাসের ২৯ তারিখেই। স্মিথ-ওয়ার্নারের নিষেধাজ্ঞা আগামী বছর ২৯ মার্চ পর্যন্ত। ব্যানক্রফটকে তো এরই মধ্যে দেখা গেছে গত সপ্তাহে পার্থ টেস্টের আগে দলের সঙ্গে অনুশীলন করতে। সম্প্রতি একটি টেলিভিশন বিজ্ঞাপনে স্মিথও দলে ফিরতে তাঁর আকুলতার কথা জানিয়েছেন।

স্মিথ-ওয়ার্নারের ফেরার প্রক্রিয়াটা নিয়ে কাজ করছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াও। সম্প্রতি এ দুজনের সঙ্গে আলাদা করে দেখা করেছেন কোচ জাস্টিন ল্যাঙ্গার। তাঁরা দলের জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ, সেটাও বলেছেন বেশ কয়েকবার। ল্যাঙ্গারের চোখে স্মিথ অস্ট্রেলিয়া দলের বিরাট কোহলি। মানে কোহলি যতটা গুরুত্বপূর্ণ ভারতের জন্য, অস্ট্রেলিয়ার জন্য স্মিথও তা–ই।
স্মিথ-ওয়ার্নারের নিষেধাজ্ঞা শেষের দুই দিন পরই ৩১ মার্চ থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে একটা ওয়ানডে সিরিজ খেলার কথা অস্ট্রেলিয়ার। ওই সিরিজেই কি দেখা যাবে দুজনকে? ল্যাঙ্গার নিজে বেশ আশাবাদী, ‘সেই সম্ভাবনা তো আছেই। খুব ভালোভাবেই আছে। তবে এটা একটা প্রক্রিয়ার অংশ। আমরা সেই প্রক্রিয়া নিয়ে অনেক আলোচনা করছি। অস্ট্রেলিয়ার জন্য যেটা সবচেয়ে ভালো হয়, আমরা সেই সিদ্ধান্ত নেব।

Facebook Comments

" ক্রিকেট নিউজ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ