Foto

নারী নির্যাতন রুখতে বিশেষ আদালত গঠন করবে পাকিস্তান


পাকিস্তানে নারী ও শিশু নির্যাতন ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। বর্তমানে পাকিস্তানকে নারীদের জন্য বিশ্বে বিপদজনক স্থান বলে মনে করা হয়। নারীদের প্রতি সহিংসতা রুখতে সম্প্রতি সেদেশের আদালত এগিয়ে এসেছেন। শিশু ও নারীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে ১০০টি বিশেষ আদালত গঠন করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন দেশটির সর্বোচ্চ আদালত।


দেশটির প্রধান বিচারপতি আসিফ সাঈদ খোসা সুপ্রিম কোর্টকে ১১৬টি নারী নির্যাতন দমন আদালত প্রতিষ্ঠা করতে বলেন। একইসঙ্গে শিশুদের প্রতি নির্যাতন রুখতে দেশটির প্রতি জেলায় আলাদা করে একটি আদালত প্রতিষ্ঠার কথাও বলেন।

বুধবার তিনি পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদে বিচারপতিদের বলেন, নারী ও শিশুদের জন্য যে আদালত গঠন করা হবে তার কার্যপ্রণালী অন্য সব আদালত থেকে ভিন্ন হতে হবে।

এ বিষয়ে আলোচনা চলছে বলে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট কর্তৃপক্ষ।

রক্ষণশীল পাকিস্তান সমাজে নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে বহু বছর ধরে লড়াই করছেন দেশটির নারীরা।

মানবাধিকার কর্মীরা জানিয়েছেন, আদালতে গিয়েও নারীরা কোনো সম্মানজনক সমাধান পান না। বরং তাদের ভিন্ন চোখে দেখা হয়।

আইনজীবীরা জানান, প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলোর সহিংসতার ঘটনা যথাযথ কর্তৃপক্ষের কানে পৌঁছায় না। গ্রাম্য সালিশে হয় এগুলোর মধ্যস্থতা করা হয় নয়তো নারীরাই উল্টো শাস্তি পান।

পাকিস্তানি নারীদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় এটি প্রথম ধাপ বলে জানিয়েছেন আইনজীবী বেনজির জাতোই। তবে তিনি শঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, পরিষ্কার পদ্ধতি ও কার্যকর বাস্তবায়ন ছাড়া হয়তো খুব তাড়াতাড়িই ঘোষণা আসবে।

নির্যাতনের শিকার নারীদের জন্য মুলতানে একটি সহায়তা কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে। কিন্তু বর্তমান সরকার এই কেন্দ্রটির আর্থিক সহায়তা বন্ধ করে দিয়েছে। আশা করবো আদালত যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তা বাস্তবায়ন হবে-যোগ করেন তিনি।

 

Facebook Comments

" বিশ্ব সংবাদ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ