Foto

ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর পাঁচ প্রস্তাবে সৌদি সরকারের সম্মতি


বাংলাদেশের হজ যাত্রীদের কল্যাণে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর পাঁচটি প্রস্তাবে সম্মতি প্রদান করেছেন সৌদি হজ ও ওমরাহ বিষয়ক মন্ত্রী ড. মোহাম্মদ সালেহ বিন তাহের বেনতেন। রবিবার স্থানীয় সময় ৩.০০ টায় ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর নেত্রত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দল সৌদি হজ ও ওমরাহ মন্ত্রীর মক্কা অফিসে সাক্ষাৎকালে বাংলাদেশের হজযাত্রীদের সুবিধার্থে এসব বিষয় তুলে ধরেন।


বাংলাদেশের পক্ষে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী হজ এজেন্সি প্রতি সর্ব নিম্ন হজ যাত্রীর কোটা ১৫০ থেকে ১০০ জনে কমিয়ে আনা, সৌদি আরবের পরিবর্তে বাংলাদেশে প্রি এরাইভাল ইমিগ্রেশান সম্পন্ন করা, হজের সময় মক্কা থেকে মিনা, আরাফা, মুজদালিফা তথা মাশায়েরে মোকাদ্দাসায় উন্নত পরিবহন ব্যবস্থা নিশ্চিত করা, বাংলাদেশের হজযাত্রীদের মিনায় দ্বিতল খাট ব্যবহারে বাধ্য না করা এবং বাংলাদেশের জন্য আইসিসির নীতিমালা অনুসরণ করে অতিরিক্ত ২০ হাজার হজযাত্রীর কোটা বরাদ্দ করার প্রস্তাব দেন।

আলাচনাকালে সৌদি হজমন্ত্রী এজেন্সি প্রতি কোটা কমানো, মাশায়েরে মোকাদ্দাসায় উন্নত পরিবহন নিশ্চিত করা এবং মিনায় বাংলাদেশি হজযাত্রীদের জন্য দ্বিতল খাট ব্যবহারে বাধ্য না করার বিষয়টি নিশ্চিত করেন। সৌদি হজমন্ত্রী ইমিগ্রেশনের বিষয়টি নিরাপত্তার সঙ্গে জড়িত বিধায় সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান। এ ছাড়া হজের কোটা বাড়ানোর বিষয়টি তিনি আন্তরিকতার সঙ্গে সর্বোচ্চ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করে জানাবেন বলে জানিয়েছেন। আলোচনায় বাংলাদেশী হজযাত্রীদের সার্বিক কল্যাণে সেবার মান বাড়ানোর বিষয়ে সৌদি হজমন্ত্রী আশ্বাস প্রদান করেন। অত্যন্ত আন্তরিক পরিবেশে অনুষ্ঠিত সাক্ষাতে বাংলাদেশের ধর্ম প্রতিমন্ত্রী সৌদি হজ মন্ত্রীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান।

বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলে আরো উপস্থিত ছিলেন ধর্ম সচিব মোঃ আনিছুর রহমান, সৌদি আরবে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ, কনসাল জেনারেল, জেদ্দা এফ এম বোরহানুদ্দিন, কাউন্সেলর হজ মোঃ মাকসুদুর রহমান, কনসাল হজ মোঃ আবুল হাসান, ধর্ম মন্ত্রনালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসাইন প্রমুখ।

Facebook Comments

" ধর্ম ও জীবন " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ