Foto

তিন পেসার আর তিন ওপেনারের সমাধানে মাশরাফির ভূমিকা


ওয়ানডে সিরিজে কাল ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। আজ সংবাদ সম্মেলনে তিন পেসার খেলানোর ইঙ্গিত দিলেন অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা চট্টগ্রাম টেস্টে দলে ছিলেন এক পেসার।


মিরপুর টেস্টে এই ‘আনুষ্ঠানিকতা’র ধার ধারেনি টিম ম্যানেজমেন্ট। দল মাঠে নেমেছে পেসার ছাড়াই। স্পিনবান্ধব উইকেটে ফলও মিলেছে প্রত্যাশিত—জয়। ওয়ানডে সিরিজেও কি তাহলে একই রেসিপি? মাশরাফি বিন মুর্তজার ইঙ্গিত, ওটা ছিল টেস্ট সিরিজ। ওয়ানডেতে রুচি পাল্টানোই স্বাভাবিক।মিরপুরে কাল থেকে ওয়ানডে সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচটা দিবা-রাত্রির। সে ক্ষেত্রে ‘ডিউ ফ্যাক্টর’ স্পিনারদের বিপক্ষে যাবে তা ভালোই জানেন মাশরাফি। উইকেট নিয়ে কথা প্রসঙ্গে বাংলাদেশ অধিনায়ক তা স্মরণ করিয়ে দিলেন, ‘আসলে যখন ডিউ (শিশির) থাকবে, তা কতটা প্রভাব ফেলবে সেটি কিন্তু ব্যাপার। দিবা-রাত্রির ম্যাচে এই সময়ে শিশিরের প্রভাব খুব গুরুত্বপূর্ণ। স্পিনাররা কতটুকু সাহায্য পাবে সেটি দেখার বিষয়।’

উইকেট ও শিশির প্রসঙ্গে উঠে এসেছে পেসারদের কথাও। মাশরাফি নিজে পেসার, স্বাভাবিকভাবেই পেসারদের পক্ষে দাঁড়ালেও ব্যাখ্যা দিলেন, ‘আমাদের পেস বোলাররাও ভালো সাহায্য করছে। ২০১৫ সাল থেকে দেখেন, আমরা একটা ছন্দে খেলছি। তিনজন পেসার সব সময় খেলেছে এমনকি কখনো চারজনও খেলেছে। আর টেস্ট ম্যাচের ওপর নির্ভর করে তো আপনি ওয়ানডে খেলতে পারবেন না। আমরা তিনজন পেস বোলার খেলাতে চাই, এটা নিশ্চিত।’

তিন পেসার খেলানোর পক্ষে মাশরাফির যুক্তির এখানেই শেষ নয়। ওয়ানডে সংস্করণে এখন ৪০ ওভার পর্যন্ত পাওয়ার-প্লে থাকে। সে কথা মনে করিয়ে দিয়ে আজ সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি বলেন, ‘একটা সুবিধা হলো, আমরা তিন পেসার নিয়ে ফ্ল্যাট উইকেটেও ভালো করেছি। আর ওয়ানডে ক্রিকেটে স্পিনের একটা অসুবিধা হলো, এখন ৪০ ওভার পর্যন্ত পাওয়ার প্লে থাকে। পাঁচটা ফিল্ডার যখন ওপরে থাকে তখন স্পিনে কাজ করা খুব সহজ। ফাস্ট বোলিং থাকলে হয় কী, আপনি যে কোনো একটি জায়গা আটকে বল করতে পারেন। ওয়ানডেতে সবাই শট খেলবে, রান করতে চাইবে, সে যে-ই হোক না কেন। সাকিব-মিরাজ এখন অসাধারণ করছে। অপুও (নাজমুল ইসলাম) ভালো করছে। কিন্তু আমাদের সাফল্যের হার কিন্তু এমনকি ফ্ল্যাট উইকেটেও পেস বোলারদের বেশি।’

টপ অর্ডার বিশেষ করে ওপেনিংয়ে বাংলাদেশের সমস্যাটা ‘পুরোনো’। এশিয়া কাপে টপ অর্ডার ভোগালেও এখন চিত্রটা উল্টো। চোট কাটিয়ে তামিম ইকবাল ফেরায় ওপেনিংয়ে মধুর সমস্যায় পড়েছে বাংলাদেশ। ওপেনিংয়ে তামিম ইকবালের সঙ্গী কে? এই প্রশ্নের জবাব খুঁজতে হবে বাকি তিন ওপেনার লিটন দাস, ইমরুল কায়েস ও সৌম্য সরকারের মধ্যে। সে ক্ষেত্রে ওপেনারদের কি নিচে ব্যাটিং করতে দেখা যাবে? মাশরাফি জবাব দিলেন হাসিমুখে, ‘হতে পারে, অনেক কিছুই হতে পারে। কিছুই বলা যাচ্ছে না। এক বা একাধিক দেখা যেতে পারে। সাম্প্রতিক অতীতে কিন্তু কয়েকজন এভাবে ব্যাটিং করেছে। ইমরুল ছয়ে ব্যাটিং করে অসাধারণ করেছে। সৌম্যও ফাইনালে সাতে নেমে ভালো করেছে। আলোচনা করে ঠিক করতে হবে।’

Facebook Comments

" ক্রিকেট নিউজ " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ