Foto

ঢাকার ১৮০০ আমলাকে প্রশিক্ষণ দেবে দিল্লি


ভারত আগামী ছয় বছরে ডিপার্টমেন্ট অব অ্যাডমিনিস্ট্রিটিভ রিফর্ম এন্ড পাবলিক গ্রিভেন্সেস’র (ডিএআর এন্ড পিজি) অধীনে ন্যাশনাল সেন্টার ফর গুড গভর্নেন্সে (এনসিজিজি) বাংলাদেশের ১৮০০ সরকারি কর্মকর্তাকে প্রশিক্ষণ দেবে।


শুক্রবার নয়াদিল্লিতে ভারত-বাংলাদেশ জয়েন্ট কনসালটেটিভ কমিশনের (জেসিসি) ৫ম বৈঠকে এ বিষয়ে দুই দেশের মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে।

বাংলদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রী একে আবদুল মোমেন এবং ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী সুষমা স্বরাজ বৈঠকে নিজ নিজ পক্ষে নেতৃত্ব দেন।

ভারতীয় কর্মকর্তাদের সূত্র জানায়, চুক্তির আওতায় ই-গভর্নেন্স, সার্ভিস ডেলিভারি, পাবলিক পলিসি এন্ড ইমপ্লিমেনটেশন, তথ্য প্রযুক্তি, বিকেন্দ্রীকরণ, নগর উন্নয়ন ও পরিকল্পনা এবং এসডিজি বাস্তবায়নে চ্যালেঞ্জ ও প্রশাসনিক নীতি কৌশল নিয়ে বাংলাদেশের সরকারি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।

এনসিজিজিতে বাংলাদেশের সরকারি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণে এটি দ্বিতীয় এমওইউ। প্রথম এমওইউ স্বাক্ষর হয় ৫ বছর আগে, এর আওতায় ১৫০০ সরকারি কর্মকর্তার প্রশিক্ষণ ইতোমধ্যেই শেষ হয়েছে।

জেসিসি বৈঠকে বাংলাদেশ ও ভারত তাদের অংশীদারিত্ব দৃঢ়করণে দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতার ক্ষেত্রে একটা দূরদর্শী রোডম্যাপ তৈরির সিদ্ধান্ত হয়। দু’দেশ মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে বাস্তুচ্যুত লোকদের নিরাপদ ও টেকসই প্রত্যাবর্তনের ব্যাপারে সম্মত হয়েছে।

যৌথ বিবৃতি অনুযায়ী, মিয়ানমারের রাখাইন অঞ্চল থেকে বাস্তুচ্যুত বিপুলসংখ্যক লোককে মানবিক সহায়তা দেয়ার জন্য বাংলাদেশের প্রশংসা করে সুষমা স্বরাজ মোমেনকে মিয়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত লোকদের নিরাপদ, দ্রুত ও টেকসই প্রত্যাবর্তনে ভারতের অব্যাহত সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

অ্যাডিশনাল ডেপুটি কমিশনার/অ্যাডিশনাল জেলা ম্যাজিস্ট্রেট, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপপরিচালক স্থানীয় সরকার, সিনিয়র সহকারী সচিব, সিনিয়র সহকারী কমিশনার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) এবং মন্ত্রণালয়ের সমমর্যাদার প্রশাসন ক্যাডারের কর্মকর্তারা এই প্রশিক্ষণের জন্য নির্বাচিত হবেন।

Facebook Comments

" জাতীয় খবর " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ