Foto

ডাকসু নির্বাচনে ভোটার-প্রার্থী হওয়ার যোগ্যতা শিথিল হচ্ছে


ডাকসু নির্বাচনে ভোটার ও প্রার্থী হওয়ার যোগ্যতা আরো শিথিল করার কথা ভাবছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। প্রধান রিটার্নিং কর্মকর্তা অধ্যাপক এস এম মাহফুজুর রহমান সময় সংবাদকে জানান, মাস্টার্স সমমানের কোনো কোর্সে ছাত্রত্ব আছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের এমন শিক্ষার্থীদের ভোটার হওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করছেন তারা।


ডাকসু নির্বাচনে ভোটার ও প্রার্থী হওয়ার যোগ্যতা নিয়ে এখনো রয়ে গেছে ধোঁয়াশা। অনেকের কাছে পরিষ্কার নয় ছাত্রত্বের ব্যাখ্যা। ২৯ ফেব্রুয়ারি সিন্ডিকেট সভার পর গণমাধ্যমে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে স্পষ্ট লেখা আছে, অনার্স, মাস্টার্স ও এমফিলের শিক্ষার্থীরাই ভোটার হতে পারবেন। বাদ পড়বেন অন্য যেকোনও কোর্সের শিক্ষার্থীরা। এবার যোগ্যতা আরো শিথিল করার কথা ভাবছে বিশ্ববিদ্যালয়।

ডাকসু নির্বাচনের প্রধান রিটার্নিং কর্মকর্তা অধ্যাপক এস এম মাহফুজুর রহমান বলেন, যাদের অনার্স শেষ হয়নি, অথবা যারা মাস্টার্সের শিক্ষার্থী তাদের বয়স যদি ৩০ বছরের কম হয় হলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারছেন এটাও মনে হয় একটু ছাড় দেওয়া হচ্ছে।

তবে শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাই এ সুযোগ পাবেন। তবে মাস্টার্সের সমমান বলতে কোনে কোর্সগুলো বুঝানো হবে সেটি এখনো ঠিক করা হয়নি। চূড়ান্ত হবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সভায়।

বিশ্ববিদ্যালয় উপ উপাচার্য প্রশাসন মনে করেন, অন্য কোর্সে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর সংখ্যা খুবই কম। এ কারণেই তাদের সুযোগ দেয়ার কথা বিবেচনা করবেন তারা।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ বলেন, আরো বিবেচনা করার সুযোগ আছে। যারা নির্বাচনের সাথে জড়িত তারা যদি গঠনতন্ত্রের মতো করে বিবৃতি দিয়ে থাকেন, তাহলে ঠিক আছে, না হয় এটা গ্রহণযোগ্য হবে না।

তবে অধ্যাপক সামাদ মনে করেন, বড় সিদ্ধান্ত নেয়ার এখতিয়ার শুধু বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেটের। যদিও উপাচার্য চাইলে জরুরি যেকোনো সিদ্ধান্ত নিতে পারেন।

Facebook Comments

" জাতীয় খবর " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ