Foto

জলবায়ুর প্রভাব মোকাবেলায় জীবপ্রযুক্তি কাজে লাগানোর আহ্বান


জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবেলায় জীবপ্রযুক্তিকে কাজে লাগানোর আহ্বান জানিয়েছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান। নতুন নতুন প্রযু্ক্তির উদ্ভাবন এবং প্রয়োগের লক্ষ্যে জীবপ্রযুক্তিবিদদের এগিয়ে আসার আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি। শুক্রবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটারে জাতীয় জীবপ্রযুক্তি মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ইয়াফেস ওসমান এই কথা বলেন। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে জীবপ্রযুক্তি বিষয়ক বিশেষায়িত গবেষণা প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব বায়োটেকনোলজির (এনআইবি) ব্যবস্থাপনায় দেশে প্রথমবারের মতো দুই দিনব্যাপী ‘জাতীয় জীবপ্রযুক্তি মেলা ২০১৮’ আয়োজন করছে। মেলার প্রতিপাদ্য ‘উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় জীবপ্রযুক্তি’।


বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, জীবপ্রযুক্তি বিষয়ক শিক্ষা, গবেষণা ও জীবপ্রযুক্তি ভিত্তিক ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণ এবং জীবপ্রযুক্তি বিষয়ে জনসচেতনতা গড়ে তোলা এই মেলার উদ্দেশ্য।
মেলা উদ্বোধন করে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান বলেন, “বর্তমান সরকারের রূপকল্প অনুযায়ী ২০৪১ সালের মধ্যে এদেশকে উন্নত দেশে পরিণত করতে হলে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির গবেষণা, উন্নয়ন এবং জীবপ্রযুক্তির গবেষণা বাড়াতে হবে।
“কৃষি, চিকিৎসা, শিল্প ক্ষেত্রের উন্নয়ন এবং জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় জীবপ্রযুক্তিকে কাজে লাগাতে হবে।”

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব আনোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব মো. নজিবুর রহমান, পরিবেশ,বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব আবদুল্লাহ আল মোহসীন চৌধুরী, শিল্প মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. আবদুল হালিম এবং কৃষি মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব মো. নাসিরুজ্জামান।

বাংলাদেশ জীবপ্রযুক্তির বর্তমান অবস্থা, সম্ভাবনা এবং চ্যালেঞ্জ তুলে ধরে স্বাগত বক্তব্য দেন ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব বায়োটেকনোলজির মহাপরিচালক মো. সলিমুল্লাহ।


বিজ্ঞান মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বিশেষায়িত গবেষণা প্রতিষ্ঠান ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব বায়োটেকনোলজিত (এনআইবি) স্থাপনের পর তারা এখন ন্যাশনাল জিন ব্যাংক স্থাপনের কাজও শুরু করেছে।
জাতীয় জীবপ্রযুক্তি মেলায় বাংলাদেশের ২৪টি সরকারি ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২০০ শিক্ষার্থী অংশ নিচ্ছেন।

মেলায় জীবপ্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট গবেষণা ও সেবা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি গবেষকরাও এসেছেন। মেলা প্রাঙ্গনে ৭০টি স্টলে তাদের কার্যক্রম প্রদর্শিত হচ্ছে।

দুদিনব্যাপী এ মেলার অন্যান্য কার্যক্রমের মধ্যে রয়েছে, জীব প্রযুক্তির নানা উল্লেখযোগ্য বিষয় নিয়ে উপস্থাপনা। রয়েছে বাংলাদেশে জীবপ্রযুক্তি গবেষণা: চ্যালেঞ্জ ও করণীয়, জীবপ্রযুক্তি শিক্ষা, মানবসম্পদ উন্নয়ন ও কর্মসংস্থান: সম্ভাবনা ও করণীয় শিরোনামে গোল টেবিল আলোচনা।

গবেষণা ও জনসচেতনামূলক পোস্টার প্রেজেন্টেশন প্রতিযোগিতা, বায়োটেকনোলজি বিজনেস আইডিয়া প্রতিযোগিতার পাশাপাশি আয়োজন করা হয়েছে গবেষণা থিসিস বিষয়ে ৩ মিনিটের উপস্থাপন প্রতিযোগিতা, কুইজ প্রতিযোগিতা, বায়ো ইনফরমেটিক্স প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা।

Facebook Comments

" প্রযুক্তি " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ