Foto

চলতি বছর শেষে পূর্বাচলে হবে আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী


রাজধানী ঢাকার অদূরে পূর্বাচলে চলতি বছর শেষে বিভিন্ন রফতানি পণ্যের আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী শুরু হবে বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। তিনি বলেন, তবে ঢাকার এই বাণিজ্য মেলা আপাতত আগারগাঁওয়েই প্রতি বছর একবার হবে। রোববার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বাণিজ্য মেলায় সারিকা ফ্যান্টাসি ইমার্জিং ওয়ার্ল্ডে প্রতিবন্ধীদের বিনামূল্যে রাইড সেবা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন বাণিজ্যমন্ত্রী।


এসময় রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর ভাইস চেয়ারম্যান বিজয় ভট্টচার্য্য, মেলা কমিটির সদস্য সচিব আবদুর রউফ ও পার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহবুবুর রহমান পলাশসহ ইপিবি ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

টিপু মুনশি বলেন, একটা আন্তর্জাতিক মেলা করতে বড় জায়গার প্রয়োজন হয়। পূর্বাচলে আপাতত সে পরিমাণ জায়গা প্রস্তুত নেই। তবে চলতি বছরের শেষ দিকে কিংবা আগামী বছরের শুরুতে আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী হবে পূর্বাচলে। সেখানে বস্ত্র, পাট, চামড়াসহ রফতানিমুখী সব পণ্য প্রদর্শন হবে। তবে আগারগাঁওয়ে মেলা আগের মতোই চলবে।

প্রসঙ্গত, চীন সরকারের সঙ্গে যৌথভাবে পূর্বাচলের ৪ নম্বর সেক্টরের ৩১২ নম্বর সড়কে নির্মিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক প্রদর্শনীর স্থায়ী প্রাঙ্গণ। এ লক্ষ্যে ২০১৫ সালের আগস্টে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ২০ একর জমির ওপর বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এপিবিশন সেন্টার (বিসিএফইসি) প্রকল্পের চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়। চীনের বেইজিং ইনস্টিটিউট অব আর্কিটেকচারাল ডিজাইনের (বিআইডি) নকশা অনুযায়ী, এ প্রদর্শনী কেন্দ্রে দেড় হাজার গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা, প্রতিটি নয় বর্গমিটারের ৮০৬টি বুথ, দুটি বড় হলরুম, সম্মেলন কেন্দ্র, অভ্যর্থনা কেন্দ্র, বাণিজ্য তথ্যকেন্দ্র, সভাকক্ষ, প্রেস সেন্টার, সার্ভিস রুম ও সাবস্টেশন নির্মাণ করা হবে। চীনের পক্ষ থেকে নির্মাণ কাজ করছে চায়নিজ এস্টেট কনস্ট্রাকশন ইঞ্জিনিয়ারিং করপোরেশন।

মন্ত্রী বাণিজ্যমেলা প্রাঙ্গণে সারিকা ফ্যান্টাসি ইমাজিং ওয়ার্ল্ডে প্রতিবন্ধীদের বিনামূল্যে রাইড সেবা উদ্বোধন করেন। এ সময় তিনি প্রতিবন্ধী শিশুদের সঙ্গে কথা বলেন। তাদের সঙ্গে তিনি রাইডে চড়ে কিছু সময় গল্পও করেন। বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, প্রতিবন্ধীরা এখন আর সমাজের বোঝা নয়। তারা সমাজের মূল ধারায় এসেছে। প্রধানমন্ত্রী ও তার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ প্রতিবন্ধীদের নিয়ে কাজ করছেন। প্রতিবন্ধীরা এখন নানা কাজে অগ্রসর হচ্ছে। তাদের এগিয়ে নিতে সব ধরনের সহযোগিতা করা হবে।

মেলা প্রাঙ্গণের পূর্বদিকে বঙ্গবন্ধু সম্মেলন কেন্দ্রর কাছাকাছি রয়েছে শিশু-কিশোরদের বিনোদনের এই পার্কটি। এখানে ট্রেন, টু-ইস্ট, নাগরদোলা, নৌকা, ঘূর্ণিসহ রয়েছে বেশ কয়েকটি রাইড। প্রতিটি রাইড উপভোগ করতে সাধারণ দর্শনর্থীদের কাছে থেকে নেওয়া হচ্ছে ৩০ টাকা।

Facebook Comments

" বিশ্ব অর্থনীতি " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ