Foto

গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর চা-চক্র আজ, অংশ নিচ্ছে ১৪ দল ও যুক্তফ্রন্ট


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণকারী রাজনৈতিক দলগুলোর শীর্ষ নেতৃবৃন্দের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় ও চা-চক্রে বসবেন। আজ শনিবার বিকাল সাড়ে ৩টায় গণভবনের সবুজ চত্বরে রাজনীতিকদের এই মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হবে।


নির্বাচনের আগে গণভবনে যেসব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপে বসেছিলেন তিনি, মূলত সেসব দলকেই গণভবনে এই চা-চক্রে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন শেখ হাসিনা। তবে এই চা-চক্র অনুষ্ঠানে না যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও বামজোট। তবে ১৪ দলীয় জোট, যুক্তফ্রন্টসহ ৭৫ রাজনৈতিক দলের অধিকাংশই প্রধানমন্ত্রীর শুভেচ্ছা বিনিময় ও চা-চক্রে অংশগ্রহণ করবে। জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী এই ’চা-চক্রে’ সবাইকে ধন্যবাদ এবং সরকার পরিচালনায় সবার সহযোগিতা চাইবেন।

এদিকে গণভবনে চা-চক্রের আমন্ত্রণের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে অনুষ্ঠানে না যাওয়ার সিদ্ধান্তের কথা চিঠি দিয়ে জানিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। বিএনপিকে সঙ্গে নিয়ে কামাল হোসেন নেতৃত্বাধীন এ জোটের তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল শুক্রবার দুপুরে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের প্রটোকল কর্মকর্তা-২ খোরশেদ আলমের হাতে ওই চিঠি পৌঁছে দেয়। জোটের পক্ষে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী স্বাক্ষরিত ওই চিঠির শুরুতেই চা-চক্রের আমন্ত্রণের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানানো হয়েছে। এরপর লেখা হয়েছে, ’বৃহস্পতিবার জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির সভায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর চা-চক্রের বিষয়টি অন্যতম এজেন্ডা হিসেবে আলোচিত হয়েছে। কমিটি চা-চক্রের অনুষ্ঠানে যোগ না দেওয়ার ব্যাপারে সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।’

একাদশ সংসদ নির্বাচনের পর ফের সংলাপ নিয়ে আলোচনার মধ্যে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের ২ ফেব্রুয়ারি গণভবনে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গণফোরাম সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু গত ২৬ জানুয়ারি আমন্ত্রণের ওই চিঠি পাওয়ার কথা সাংবাদিকদের জানিয়েছিলেন।

শুক্রবার প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো চিঠিতে বলা হয়, ’৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনের নামে প্রহসনের মাধ্যমে গঠিত সরকার কোনোভাবে নৈতিক নয়। সেদিন দেশের মানুষের অন্যতম অধিকার ভোটাধিকার প্রয়োগ করে প্রতিনিধি নির্বাচন করার অধিকারকে হরণ করা হয়েছে। অন্যদিকে ফ্রন্টের হাজার হাজার নেতা-কর্মী এখনো জেলে আছে। নতুন নতুন মামলায় আরো অসংখ্য নেতা-কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আহূত চা-চক্রে অংশগ্রহণ করা কোনোক্রমে সম্ভব নয়।’ অপরদিকে গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর চা-চক্রের আমন্ত্রণে অংশ নিচ্ছেন না বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতারা।

Facebook Comments

" জাতীয় খবর " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ