Foto

এলআরবির গান কেউ গাইতে পারবে?


‘এলআরবি’ নামটি আর কেউ ব্যবহার করতে পারবে না—এলআরবির প্রধান প্রয়াত ব্যান্ড তারকা আইয়ুব বাচ্চুর পরিবারের সদস্যদের আপত্তির কারণে এরই মধ্যে ব্যান্ডের নাম পরিবর্তন করা হয়েছে। ব্যান্ডটির নতুন নাম ‘বালাম অ্যান্ড দ্য লিগ্যাসি’। এই ব্যান্ডের অন্যতম সদস্য মাসুদ বলেছেন, ‘এলআরবির প্রাণপুরুষ আইয়ুব বাচ্চুর প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা আর সম্মান রেখে তাঁর স্মৃতিকে অম্লান রাখতে, আমাদের সবার প্রিয় ব্যান্ডকে বাঁচিয়ে রাখতে এই উদ্যোগ নিয়েছি।’ এরপর স্বাভাবিকভাবে আরেকটি প্রশ্ন সামনে এসেছে—আইয়ুব বাচ্চু আর এলআরবির গান গাইতে পারবে বালাম অ্যান্ড দ্য লিগ্যাসি?


সাবেক এলআরবি আর বর্তমান বালাম অ্যান্ড দ্য লিগ্যাসির ব্যবস্থাপক শামীম আহমেদ প্রথম আলোকে বলেছেন, "আমরা অবশ্যই গাইতে পারব। স্টেজে তো বস (আইয়ুব বাচ্চু) আর এলআরবির গান গাওয়ার ব্যাপারে কোনো বাধা থাকতে পারে না। আমরা তা-ই মনে করি। আশা করছি, পরিবার এ ক্ষেত্রে ততটা নির্দয় আচরণ করবে না। বস আর এলআরবির গানগুলোকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য চর্চার কোনো বিকল্প নেই। আর এই চর্চার একমাত্র স্থান স্টেজ।"

আইয়ুব বাচ্চুর পরিবারের কারও নাম উল্লেখ না করে শামীম আহমেদ বলেন, "এলআরবির নাম আমাদের কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া হয়েছে। কিন্তু আমি স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, আপনারা ব্যান্ডের নাম কেড়ে নিয়েছেন, কিন্তু বস আর এলআরবির প্রতি আমাদের ভালোবাসা কোনো দিন কেড়ে নিতে পারবেন না।"

আইয়ুব বাচ্চুর পরিবারের কাউকে না জানিয়ে, কারও সঙ্গে আলোচনা না করে কেন এলআরবির নতুন লাইনআপ করা হলো? শামীম আহমেদ বলেন, "পরিবারের সিদ্ধান্তে কেন আমাদের চলতে হবে? বস তো বেশির ভাগ সময় আমাদের নিয়েই থেকেছেন। কিন্তু কোনো দিন আমাদের এ ধরনের কোনো কথা বলেননি। বসের মৃত্যুর পর বারবার বলেছি, আমরা ব্যান্ডের কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে চাই। তখন কেউ কিছু বলেননি। আমরা বসের সম্মান রক্ষার্থে সবকিছু মেনে নিচ্ছি। সবাই চুপ করে আছি। বসকে নিয়ে কোনো ধরনের নোংরামি হোক, আমরা চাই না। তবে বসের পরিবারের মানুষজনের কারণে যদি তা হয়, বস সবার সামনে ছোট হন, বসের প্রতি কারও ভালোবাসায় আঘাত লাগে; তাহলে এর দায়দায়িত্ব আমরা কেউ নেব না।"

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে আইয়ুব বাচ্চুর ছেলে আহনাফ তাজওয়ার আইয়ুব লিখেছেন, "যদি কেউ এলআরবির গান করতে চান, গাইতে পারেন।" এ ক্ষেত্রে বালাম অ্যান্ড দ্য লিগ্যাসি ব্যান্ডের নাম উল্লেখ করে তিনি বলেন, "যদি তাঁরা স্টেজে এলআরবির গান করতে চান, করতে পারেন। তাঁরা কিন্তু এলআরবির গান করতে চেয়েছেন।" তিনি বালাম অ্যান্ড দ্য লিগ্যাসি ব্যান্ডকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এই ব্যান্ডের প্রতি শুভকামনা জানিয়ে তিনি লিখেছেন, "আমি চাই, তাঁরা যেন সাফল্যের চূড়ায় যেতে পারেন। বাবার গানগুলোকেও বাঁচিয়ে রাখবেন।"

এদিকে গত সোমবার সন্ধ্যায় আইয়ুব বাচ্চুর মেয়ে ফাইরুজ সাফরা প্রথম আলোকে বলেন, বাবা সব সময় বলতেন, "আমাকে ছাড়া এলআরবি চলবে না। আমার এই সম্পদের অধিকার শুধু তোমার আর তোমার ভাইয়ের।" বাবা একটা কথা সব সময় পরিষ্কার করে বলতেন, "আমি তোমাদের খুব গরিব বাবা। আমার অনেক সীমিত জিনিস। আমার সবচেয়ে বড় সম্পদ আমার ছেলে ও মেয়ে। জীবনে অনেক শ্রম দিয়ে তোমাদের লেখাপড়া করিয়েছি।"

আইয়ুব বাচ্চুর অবর্তমানে তাঁর ব্যান্ডের কী হবে? এই প্রশ্নে ফাইরুজ সাফরা বলেন, বাবা প্রায়ই বলতেন, "আমি না থাকলে, আমার কোনো জিনিসকে কখনো উল্টাপাল্টা হতে দিবা না।"

এলআরবির সদস্যদের উদ্দেশে ফাইরুজ সাফরা বলেন, "তারা জিরো থেকে নতুন একটা ব্যান্ড গঠন করুক। তাতে আমাদের বাধা দেওয়ার কিছু নেই। যে যেভাবে বাবাকে চায়, ট্রিবিউট জানাতে পারবে, সেখানে আমরা বাধা দেওয়ার কেউ না।"

আর এলআরবির গান গাওয়ার ব্যাপারে ফাইরুজ সাফরা বলেন, "মঞ্চে যে কেউ বাবার গান গাইতে পারবে।"

১৯৯০ সালের ৫ এপ্রিল এলআরবি প্রতিষ্ঠা করেন আইয়ুব বাচ্চু। শুরুতে এই ব্যান্ডের নাম ছিল "লিটল রিভার ব্যান্ড" (এলআরবি)। ১৯৯৭ সালে নাম বদলে রাখা হয় "লাভ রানস ব্লাইন্ড" (এলআরবি)। গত বছরের ১৮ অক্টোবর সকালে নিজ বাসায় হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান আইয়ুব বাচ্চু।

 

Facebook Comments

" বিনোদন " ক্যাটাগরীতে আরো সংবাদ